মুক্তিযুদ্ধের ছবি দেখালো না শ্যামলী প্রেক্ষাগৃহ

0
43

ঢাকা, ১৬ ডিসেম্বর , (ডেইলি টাইমস ২৪):

মহান বিজয় দিবসে মুক্তিযুদ্ধের চারটি ছবি প্রদর্শনের অনুরোধ করেছিল তথ্য মন্ত্রণালয়। এ বিষয়ে একটি বিজ্ঞপ্তিও পাঠানো হয় সিনেমা পরিবেশক ও সারাদেশের হল মালিক বরাবর। এমন আহ্বানের পর আজ (১৬ ডিসেম্বর) ঢাকা শহরে প্রায় সব হলেই চলেছে মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপটে নির্মিত ছবিগুলো। শুধু ব্যতিক্রম ছিল, শ্যামলী সিনেমা হল। দেশের অন্যতম আধুনিক এ প্রেক্ষাগৃহটি জানায়, ডিসিবি ফরমেট না পাওয়ায় তাদের এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।

১৬ ডিসেম্বর সকাল থেকে সরজমিনে বেশ কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে ঘুরে এমন চিত্রই পাওয়া গেল।
সরকারের পাঠানো চারটি ছবিগুলো হলো- ওরা ১১জন, আগুনের পরশমণি, জয়যাত্রা ও গেরিলা। এরমধ্যে রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্স চারটি, বলাকা সিনেওয়ার্ল্ড (গেরিলা), যমুনা ব্লকব্লাস্টার (আগুনের পরশমণি), মধুমিতা (গেরিলা), অভিসার (আগুনের পরশমণি) একটি করে মুক্তিযুদ্ধের ছবি প্রদর্শন করেছে।এদিকে শ্যামলী সিনেমা হল কেন মুক্তিযুদ্ধের ছবি চালায়নি, তার ব্যাখ্যা দেন প্রেক্ষাগৃহটির ব্যবস্থাপক আহসান হাসান। সকাল সাড়ে ১০টায় প্রেক্ষাগৃহের অফিসে তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের চারটি ছবি যে ফরমেটে, তা কিন্তু আমাদের হলে চলে না। আমরা কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছিলাম ডিসিবিটা যেন আমাদের মতো করে দেওয়া হয়, তারা তা দেননি। তাই আমরা ছবিটি চালাতে পারিনি।’

তবে এর বিপরীত চিত্র দেখা গেল রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সে। দেশের সর্বাধুনিক মাল্টি প্রেক্ষাগৃহটি কিন্তু কোনও সমস্যা ছাড়াই চারটি ছবিই প্রদর্শন করছে।.

চার ছবির পোস্টার
এমনকি বেলা ১২টায় গিয়ে দেখা যায়, তাদের প্রথম শো ৮০ শতাংশ দর্শক দেখছেন। এছাড়া পরবর্তী দুটি শোর টিকিট অগ্রিম পূরণ হয়ে গেছে। সকালে তারা ‘জয়যাত্রা’, দুপরে আগুনের পরশমণি ও গেরিলা আর সন্ধ্যায় ‘ওরা ১১জন’ প্রদর্শন করছে।জানা যায়, প্রেক্ষাগৃহটি ডিজিটাল ফরমেটেই এগুলো প্রদর্শন করছে। প্রদর্শনেও কোনও সমস্যা তাদের হয়নি।

অন্যদিকে, বিজয় দিবসের সরকারি ছুটি থাকায় শ্যামলী কর্তৃপক্ষের এ অভিযোগ নিয়ে সরকারি কোনও কর্মকর্তার মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

সরকারের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে প্রেক্ষাগৃহ মালিকরা। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ও মধুমিতা সিনেমা হলের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, ‘‘ছবিতে মোটামুটি দর্শক হয়েছে। আমরা সরকারের সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানিয়ে সকালে ‘গেরিলা ছবিটি প্রদর্শন করেছি।’’
একই ছবি প্রদর্শন করেছে বলাকা সিনেওয়ার্ল্ড। এর ব্যবস্থাপক সাজিদউল্লাহ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘উদ্যোগটি খুবই ভালো। তবে আরও আগে এর প্রচারণা দরকার ছিল। প্রচারণা ভালো হলে, ছবি দেখেতে আরও অনেক দর্শক আসতেন।’