বহিরাগতদের আগুনে পুড়ছে বেরোবির জীববৈচিত্র্য

ঢাকা , ১১ ফেব্রুয়ারী , (ডেইলি টাইমস ২৪):

বহিরাগতদের আগুনে জীববৈচিত্র্য হুমকিতে পড়েছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়(বেরোবি)। বহিরাগত প্রবেশে প্রশাসনের অবহেলা ও উদাসীনতায় আশঙ্কা দেখা দিয়েছে ভয়াবহ ক্ষয়ক্ষতির

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত এক বছরে পাঁচ বারসহ এ বছরেই দুইবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। অধিকাংশ ঘটাচ্ছে বহিরাগত মাদকসেবী ও স্কুল-কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা।

সর্বশেষ শনিবার দুপুর ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ অ্যাকাডেমিক ভবন এবং শহীদ মুখতার ইলাহী হলের সামনের অংশের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিক আগুন নেভাতে এগিয়ে আসে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল আগুন নেভায়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও প্রশাসন সূত্র জানায়, চতুর্থ অ্যাকাডেমিক ভবনের নিচ তলায় রয়েছে রসায়ন বিভাগের ল্যাব, পাশেই কেন্দ্রীয় গ্রন্থগার ও ছাত্রদের আবাসিক হল। ফলে আগুন নেভাতে কালক্ষেপণ হলেই ভয়াবহ ক্ষয়ক্ষতির ঘটনা ঘটতে পারত। এ সময় সিদ্দিক মেমোরিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের তিন এসএসসি পরীক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন- জয় কিসপট্টা, আরিফুল ইসলাম ও ফজলে রাব্বি।

এর আগে গত ৩০ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ সংলগ্ন বাগানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। অগ্নিকাণ্ডে বাগানের মূল্যবান বনজ, ফলদ ও ওষুধি গাছ পুড়ে যায়। ওই ঘটনায় রংপুরের চারটি কলেজের পাঁচ শিক্ষার্থীকে আটক করে পুলিশ।

এছাড়া গত বছর পাঁচবার নেশাখোরদের আগুনে পুড়ে যায় বেরোবির কোটি টাকার ওষুধি বাগান। যার অধিকাংশই ঘটিয়েছে বহিরাগত মাদকসেবী নেশাখোররা।

বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্টদের দাবি, ক্যাম্পাসে মাদকদ্রব্য ও বহিরাগতদের অবাধ প্রবেশই এসব ঘটনার প্রধান কারণ।

বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক মুহিব্বুল ইসলাম মুন বলেন, আটক তিনজনকে কোতোয়ালি থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বলেন, আগুন লাগার বিষয়টি অবগত আছি। ক্যাম্পাসে বহিরাগত প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপসহ আগুন লাগার ঘটনা খতিয়ে দেখবেন বলেও জানান।