তিন ম্যাচ পর জয়ের মুখ দেখল ম্যান সিটি

0
10

ঢাকা , এপ্রিল , (ডেইলি টাইমস ২৪):

অনেকটা দুঃস্বপ্নের মতো এপ্রিল মাসটা কাটাচ্ছে ম্যান সিটি। লিভারপুলের কাছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দুই লেগেই পরাজয় বরণ করে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয় তারা। মাঝে ম্যানচেস্টার ডার্বিতে ইউনাইটেডের কাছে ৩-২ গোলের হারে আরো নুইয়ে যায় প্রিমিয়ার লিগে অসাধারণ পারফরম্যান্স করা দলটি। সেই হ্যাটট্রিক হারের ক্ষত ভুলে আবারো জয়ের ধারায় ফিরেছে ম্যান সিটি। ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে টটেনহ্যামকে ৩-১ গোলে হারালো গার্দিওলার সিটি। লিগের প্রথম ভাগেও স্পার্সকে ৪-১ গোলে হারিয়েছিল তারা।

ম্যাচের প্রথম থেকেই গোলের জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে ম্যান সিটি। ম্যাচের ২১ মিনিটেই গোল করে সিটিকে এগিয়ে দেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল হেসুস। কোম্পানির দূরপাল্লার পাস থেকে গোল করেন হেসুস। প্রিমিয়ার লিগে এটি তার দশম গোল। এই গোলের রেশ কাটতে না কাটতে আবারো গোলের দেখা পায় সিটি।

স্টারলিংকে ডি বক্সের ভেতর ফাউল করেন টটেনহ্যামের গোলকিপার হুগো লরিস। রেফারি সঙ্গে সঙ্গে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন। সেই পেনাল্টি থেকে গোল করে ২-০ গোলের লিড এনে দেন জার্মান মিডফিল্ডার গুন্দোগান। প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার আগেই এক গোল শোধ দেয় স্পার্স। ক্রিশ্চিয়ান এরিকসনের গোলে ২-১ গোলে পিছিয়ে থেকে বিরতিতে যায় টটেনহ্যাম।

বিরতি থেকে ফিরেও চলে আক্রমণ পাল্টা আক্রমণ। ৬৩ মিনিটে গুন্দোগানের ক্রস থেকে গোলকিপারকে একা পেয়েও বল বাইরে মারেন হেসুস। ৬৫ মিনিটে ডিবক্সের ভেতর স্টারলিংয়ের শট সোজা লরিসের তালুবন্দি হয়। ৭১ মিনিটে ম্যাচের সবথেকে সহজ সুযোগটি মিস করেন রহিম স্টারলিং। তবে ঐ মিনিটেই কর্নার থেকে হেসুসের শটে রিবাউন্ড থেকে গোল করে পাপমোচন করেন স্টারলিং। মৌসুমে এটি তার ২২তম গোল।

৮৬ মিনিটে এরিকসনের দূরপাল্লার শট রুখে দিয়ে স্পার্সের হতাশা আরো বাড়িয়ে দেন সিটি গোলকিপার এদারসন। ফলে ৩-১ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে সিটি। এই জয়ে প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা থেকে মাত্র এক ধাপ দূরে সিটি। আগামীকাল ওয়েস্ট ব্রমের বিপক্ষে ইউনাইটেড হারলে আগামীকালই লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাবে সিটি। যদি ইউনাইটেড কাল জিতে যায় তাহলে ঘরের মাঠে পরবর্তী ম্যাচে সোয়ানসির বিপক্ষে জয় সিটিকে এনে দিবে লিগ শিরোপা।