সারাদেশ

পাকুন্দিয়ায় গণধর্ষণের শিকার তরুণী

ঢাকা , জুন , (ডেইলি টাইমস ২৪):

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় গণধর্ষণের শিকার হয়েছে এক তরুণী। আজ মঙ্গলবার (১২ জুন)  দুপুরে পাকুন্দিয়া উপজেলার শালংকা গ্রাম থেকে উক্ত তরুণীর কথিত প্রেমিকসহ গণধর্ষণের সঙ্গে জড়িত তিন আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২, কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের একটি দল। গ্রেফতারকৃতরা হলো, শালংকা গ্রামের আবদুল মোতালিবের ছেলে বাদশা মিয়া (২৫), মৃত সিরাজ উদ্দিনের ছেলে এরশাদ (২৫) ও মো. দুলাল মিয়ার ছেলে মো. রুস্তম (২১)।
র‌্যাব সূত্রে জানা যায়, প্রায় এক মাস আগে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার মারিয়া গ্রামের উক্ত তরুণীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে বাদশা মিয়ার পরিচয় হয়। পরে উভয়ের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ১০ জুন বিকালে ঈদের কেনাকাটা করে দেওয়ার কথা বলে প্রেমিক বাদশা মিয়া তরুণীকে বাড়ি থেকে ফোনে ডেকে আনে। পরে মোটরসাইকেলযোগে প্রথমে তারা পাকুন্দিয়া বাজারে যায় এবং সেখানে কিছু কেনাকাটা করে।
রাত এগারোটার দিকে বাদশা মিয়া তাকে  ছোট আজলদী গ্রামের একটি কলাবাগানে নিয়ে যায়। সেখানে পূর্ব থেকে বাদশা মিয়ার আরো চার বন্ধু অপেক্ষা করছিলো। পরে বাদশা ও তার অপর চার সঙ্গী মিলে তরুণীর মুখ কাপড় দিয়ে বেঁধে জোরপূর্বক পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে প্রায় অচেতন অবস্থায় তরুণীটিকে কলাবাগানে ফেলে রেখে তারা পালিয়ে যায়। ভোরের দিকে তরুণী পায়ে হেঁটে পুলেরঘাট বাজারে এসে লোকজনদের ঘটনাটি জানায়। তরুণীটিকে বর্তমানে কিশোরগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
এ ব্যাপারে ধর্ষিতার পিতা বাদী হয়ে পাকুন্দিয়া থানায় পাঁচজনকে আাসমি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে বলে র‌্যাব জানায়। র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২ কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের অধিনায়ক লে: এম শোভন খান জানান, মামলায় অভিযুক্ত অপর দুই আসামি নাসিম(২২) ও মামুনকে(৩০) গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আরো সংবাদ...