আন্তর্জাতিক

পার্লামেন্ট সদস্য রাত কাটালেন শরণার্থীদের সঙ্গে

ঢাকা , ২৬ জুন , (ডেইলি টাইমস ২৪):

তারা আশ্রয়ের খোঁজে আসা কোন শরণার্থী নন। ইউরোপের তিনটি দেশের পার্লামেন্ট সদস্য হয়েও তারা রাত কাটালেন শরণার্থীদের জন্য পাঠানো উদ্ধারকারী জাহাজে।

পাঁচ দিন ধরে ভূমধ্যসাগরে ২৩৪জন শরণার্থী, ১৭জন নাবিক নিয়ে আটকা পড়ে আছে উদ্ধারকারী জাহাজ ‘লাইফলাইন’-এ। জার্মানির একটি বেসরকারি ত্রাণসংস্থা ‘সি ওয়াচ’ লিবিয়ার উপকূল থেকে আসা এসব শরণার্থীকে উদ্ধার করে জাহাজে তুলেছে। বর্তমানে জাহাজটি দক্ষিণ ইউরোপের ছোট দ্বীপরাষ্ট্র ‘মালটা’ থেকে ৩৮ কিলোমিটার দূরে রয়েছে।

পর্যাপ্ত পানি ও খাবারের ব্যবস্থা থাকলেও অনেক শরণার্থী গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছে। জাহাজটির ক্যাপ্টেন তাই চাচ্ছেন মালটা বা ইতালির উপকূলে নোঙর ফেলতে। কিন্তু মিলছে না অনুমতি।

গত পাঁচদিন ধরে চলছে এ অবস্থা। এ অবস্থার পরিত্রাণ পেতে গত রবিবার ‘লাইফলাইনে’ আসেন জার্মানির তিন, স্পেনের এক ও পর্তুগালের একজন করে এমপি।

তবে মালটা প্রশাসন জোরা দাবি করে জানান, তারা জাহাজে যথেষ্ট খাবার ও পানি পাঠিয়েছে। আফ্রিকার কাছে থাকার সুবাদে ইউরোপে ঢোকার রাস্তা হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে শরণার্থীরা ব্যবহার করে আসছে মালটাকে। মালটা প্রশাসন চাচ্ছে এটি বন্ধ করে দিতে।

অন্যদিকে নবনির্বাচিত ইটালির কট্টরপন্থী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্তেও সালভিনি শরণার্থীদের ব্যাপারে কড়া নীতি মেনে আসছেন।

‘লাইফলাইনে’ থাকা ইউরোপের পাঁচ এমপিরা বিভিন্ন দেশের সঙ্গে কথা বলছেন। দ্রুত এ অবস্থার অবসান ঘটাতে চাচ্ছেন তারা।

আরো সংবাদ...