রাজনীতি

রাষ্ট্রপক্ষ বিচারকার্য ছাড়াই খালেদা জিয়ার রায় দেওয়ার চাপ দিচ্ছে

ঢাকা , ১৪ সেপ্টেম্বর, (ডেইলি টাইমস ২৪):

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ। তিনি হাত-পা নাড়াতে পারেন না, হাঁটাচলা করতে মারাত্মক অসুবিধা হয়। গুরুতর অসুস্থতার কারণে আদালতে যেতে পারবেন না, বেগম জিয়া সে কথাটিই বলেছেন। কিন্তু রাষ্ট্রপক্ষ জোর করে আদালতকে ব্যবহার করে বিচারকার্য ছাড়াই রায় দেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে। এটি সম্পূর্ণরূপে ন্যায় বিচারের পরিপন্থী, অমানবিক ও মানবাধিকার লঙ্ঘন। প্রতিহিংসার বিচার চরিতার্থ করতেই তাড়াহুড়ো করার তাগিদ দেওয়া হচ্ছে। রাষ্ট্রপক্ষের এই চাপ সরকারের নির্দেশে হচ্ছে।

শুক্রবার বেলা ১১টায় নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু প্রমুখ বক্তব্য দেন।

রিজভী বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন গুরুতর অসুস্থ, সে কথাটি আদালতকেই তিনি বলেছেন, কিন্তু আদালত তো তার চিকিৎসার ব্যাপারে কোন নির্দেশনা দিলেন না। কারণ সেই আদালত সরকারের হুকুমের বাইরে যেতে পারবেন কি না সেটি নিয়ে জনগণ সন্দেহ পোষণ করে।

তিনি আরো বলেন, অসাংবিধানিকভাবে কারাগারে আদালত বসিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায় চায় রাষ্ট্রপক্ষ। রাষ্ট্রপক্ষ আদালতকে বলেছে ‘যেহেতু খালেদা জিয়া আদালতে আসতে চাচ্ছেন না, তাই মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে রায় ঘোষণার দিন ধার্য করুন’। আদালতের কার্যক্রম শেষ করতে লিখিত আবেদনও দিয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। রাষ্ট্রের অবৈধ কর্তৃপক্ষ আওয়ামী সরকার চক্রান্তমূলকভাবেই তার বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে তাকে সাজা দিয়েছে সেটি আবারও প্রমাণ করলেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা’।

রিজভী বলেন, পোলিও টিকা খাওয়ানোর একটি শ্লোগান আমরা অনেকদিন যাবৎ শুনে এসেছি ‘বাদ যাবে না একটি শিশু’। এখন সরকার এই শ্লোগানটি ভিন্ন অর্থে প্রয়োগ করছে বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর। অর্থাৎ ‘মামলা-হামলায় বাদ যাবে না একটিও বিএনপি নেতাকর্মী’। দেশে এখন মানুষ নিজের ছায়াকেও ভয় পাচ্ছে। মনে হয়-দেশের প্রতিটি মানুষকে কেউ না কেউ অনুসরণ করছে, গতিবিধি লক্ষ্য করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, এমনিতে গুম, খুন ও ক্রসফায়ারের ক্রমাগত বিস্তৃতি ঘটছে, তার ওপর রাজধানীসহ দেশের আনাচে কানাচে এমন কোন বিএনপিসহ বিরোধী দলের মানুষ বা সমর্থক নেই যাদের নামে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়নি। পাশাপাশি বিএনপিসহ বিরোধী দলের নেতাকর্মী সমর্থকদের ছাঁকনি দিয়ে ধরা হচ্ছে। জনগণকে পুলিশের নিরাপত্তা দেওয়ার কথা অথচ নিত্যদিনের পুলিশের আগ্রাসী অভিযানে দেশের মানুষের জানমাল নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়ছে। এদেশে বিদেশি মিশনের কূটনীতিকদেরও নিরাপত্তা নেই। বাংলাদেশে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের উপরও হামলা হয়েছে। কোথাও আওয়াজ শুনলেই সেখানে সরকারি হামলা ধেয়ে আসছে।

রিজভী বলেন, সারাদেশে গনগ্রেপ্তার মামলার তুফান অব্যাহত আছে। গতকাল রাতে বিএনপির সাংস্কৃতিক সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন আহমদ উজ্জল, জাসাসের সাধারণ সম্পাদক হেলাল খানসহ নেতাদের বাসায় অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। তবে গ্রেপ্তার হামলা মামলা দিয়ে রক্ষা পাওয়ার সময় শেষ হয়ে গেছে।

আরো সংবাদ...