ফ্যাশন

সুতিতে আরাম

ঢাকা , ২৫ সেপ্টেম্বর, (ডেইলি টাইমস ২৪):

চৈত্রের মাটিফাটা রোদ্দুর নয়, ভাদ্রের তালপাকা গরমও এখন নয়; তবু আশ্বিন মাসের আবহাওয়ায় স্বস্তি মিলছে না। এ রকম গরমে আরাম পাওয়া যায় সুতির পোশাকে। সুতির পোশাকের সুবিধা, মানিয়ে যায় সব জায়গাতেই। অফিসে, পরিবার বা বন্ধুদের সঙ্গে ঘুরতে গেলে ফ্যাশনেবল হয়ে ওঠা যায় ভিন্ন ধাঁচের সুতি পোশাকেও। আবার এ পোশাকের নকশায় সহজেই ফুটে ওঠে দেশজ ঐতিহ্য আর হাল ফ্যাশনের আধুনিকতা।
অনেকের ধারণা সুতি কাপড়ের পোশাকে নিজেকে স্টাইলিশভাবে উপস্থাপন করা যায় না। আসলে ধারণাটা ভুল। বিবি প্রোডাকশনসের স্বত্বাধিকারী ও ডিজাইনার বিবি রাসেলের মতে, প্রজন্মই ভবিষ্যৎ। সৃষ্টিশীল ফ্যাশন ডিজাইনাররা ভাবনার বৈচিত্র্যে তৈরি করেন ফ্যাশনেবল পোশাক, যা নতুন প্রজন্মের উপযোগী। আসলে সব প্রজন্মের উপযোগী ফ্যাশনেবল পোশাকও তৈরি করা যায় ডিজাইনে নতুনত্ব এনে। বিবি রাসেল নিজে কলকাতার বরেণ্য অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের জন্য পোশাকের ডিজাইন করেছেন, যেটিতে শিল্পীর বয়স, ব্যক্তিত্ব, অবস্থান—এ রকম দিকগুলো বিবেচনায় রেখেছিলেন। আবার কিছু কিছু পোশাকে তরুণ প্রজন্মের পছন্দ ও চাহিদার কথা মাথায় রেখে ভিন্নতা নিয়ে এসেছেন তিনি।

যেকোনো আড্ডায় মানিয়ে যাবে সুতির টপ

যেকোনো আড্ডায় মানিয়ে যাবে সুতির টপ

ভিন্নতায় অনন্য
বিবিস প্রোডাকশনে এ-লাইন টিউনিক, লম্বা টিউনিক, টপ, ভিন্ন ধাঁচের কামিজের পাশাপাশি রয়েছে বিবিস মিডি ড্রেস। চেক বা ডোরাকাটা (স্ট্রাইপড) কাপড়ের পোশাকে বৈচিত্র্য আনা হয়েছে নানাভাবে। কিছু পোশাকে হয়তো দুভাবে রয়েছে একই স্ট্রাইপ, যাতে পোশাকটির এই দুই অংশের স্ট্রাইপের প্যাটার্ন আলাদা বলে মনে হয়। চেক কাপড়ের ওপর কোথাও একরঙা কাপড় ব্যবহার হয়েছে। পাঞ্জাবি কাট, গামছা কামিজ আর গামছা ওড়না তো রয়েছেই। আরও আছে বিবিস স্পেশাল টপ।
সুতির পোশাকের কলার ও হাতার কাজেও রয়েছে ভিন্নতা। কোনোটার কলার একটু উঁচু; কোনোটার গলা গোল, কোনোটার আবার ভি-আকৃতির। কোনোটার গলার সামনে ও পেছনে খানিকটা বাড়তি অংশ। ব্যবহার করা হয়েছে সামনে কলার, পেছনে ফিতা।
পাজামার বেলায়ও এখন নানা রকম কাট। ঘারারা, ফ্লেয়ার প্যান্ট, ধুতি প্যান্ট, পাতিওয়ালা সালোয়ার, হারেম প্যান্ট ছাড়াও সাধারণ স্কার্ট, র‍্যাপ স্কার্ট (পাজামার মতো দুই পায়ে আলাদাভাবে জড়িয়ে থাকে) বানানো হচ্ছে সুতি কাপড় দিয়ে। চেক ও একরঙা কাপড়ের যুগপৎ ব্যবহার সাধারণ স্কার্টের ডিজাইনে এনেছে অনন্যতা।

পাঞ্জাবি কাটের টপের সঙ্গে পালাজ্জো আনবে ভিন্নতা পোশাক: ক্লাবহাউসসুতি পোশাক কেন?
বিশেষজ্ঞরা জানালেন, সুতি পোশাক আরামদায়ক, সহজেই ঘাম শুষে নিতে পারে। কৃত্রিম তন্তুর তৈরি পোশাক সেভাবে ঘাম শোষণ করতে পারে না। আবার খাদি কাপড় সুতি হলেও সেটি মোটা। তবে বিবি রাসেল জানালেন, হাতে তৈরি মোটা খাদি আরামদায়ক। এর শোষণক্ষমতা ভালো। বাংলাদেশে পাতলা খাদি তৈরির যন্ত্র নেই।
দেশালের ডিজাইনার ইশরাত জাহান জানালেন, সুতার কাউন্ট যত বেশি হয়, কাপড় তত পাতলা হয়। তবে কাপড়ের এক ইঞ্চিতে যতটা সুতা থাকে (সানা), তার ওপরও কাপড়ের পুরুত্ব নির্ভর করে। সানা যত বেশি হয়, কাপড় তত পুরু বা মোটা হয়।

মডেল: শাহ্‌তাজ, সাজ: বিন্দিয়া এক্সক্লুসিভ, পোশাক: বিবি প্রোডাকশনস, ছবি: কবির হোসেন

আরও সুতি পোশাক
দেশাল, সাদাকালো, নিপুণ, সৃষ্টি, বাংলার মেলা, অঞ্জন’স, বিবিয়ানা, অরণ্য, তাগা, ক্লাবহাউসসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে পাবেন ফতুয়া, টপ ও টিউনিক। পোশাকের বিভিন্ন অংশে কুচির ব্যবহার পোশাকে এনেছে বৈচিত্র্য। ছোট হাতার পোশাক যেমন আছে, তেমনি আবার একটু বড় হাতার নকশায়ও আছে ভিন্নতা। বড় হাতার নিচের অংশ হয়তো একটু ছড়ানো, সেখানেও থাকছে কুচির ব্যবহার।
সুতির সাদায় মিলবে স্বস্তি

সুতির সাদায় মিলবে স্বস্তিইশরাত জাহান বলেন, একই কাপড়ের পোশাকের কাটে একটু বৈচিত্র্য আনলেই তা বড় পার্থক্য সৃষ্টি করে। বেলবটম ধরনের হাতা হলে বা হাতায় বো বাঁধা হলে যেমন সুন্দর দেখায়, তেমনি তা পোশাকটিকে একটু অন্য রকম করে তোলে। আবার হাতাকাটা পোশাকের সঙ্গে হয়তো শার্ট কলার করা হলো। এই পোশাকের পুরোটাতেই বোতাম থাকতে পারে, আবার পোশাকটির অর্ধেকটা পর্যন্তও বোতাম থাকতে পারে। ছোট ছোট যোগ-বিয়োগ সুতি কাপড়ের পোশাকেও নিয়ে আসে ভিন্নতা। একরঙা একটি পোশাক আর সেই একই রঙের ওপর অন্য একটি রঙের জলছাপ করা পোশাক দেখতে আলাদা হয়। বিভিন্ন মোটিফে কাজ করার ফলেও পোশাকে ভিন্নতা আসে।
বুননের সময় কাপড়ে তোলা নকশাও পোশাকে আনে বৈচিত্র্য (যেমন ডবি নকশা)। ইশরাত জাহান জানালেন, খাটো, মধ্যম ও লম্বা—এই তিন ধরনের টপই চলছে এখন ফ্যাশনে। অ্যাপ্লিক, এমব্রয়ডারি, স্ক্রিন প্রিন্ট বা হাতে করা সুতার কাজ থাকছে পোশাকগুলোতে। কিশোরী থেকে শুরু করে প্রায় সব বয়সীদের জন্য সুতির স্কার্ট রয়েছে দেশালে।
বিশ্বব্যাপী সুতি পোশাকের চাহিদাও বেশ। ক্লাবহাউসের হেড অব ডিজাইন মো. আবিদ শেখ জানালেন, সুতি পোশাকে নানানভাবেই ভিন্নতা আনা সম্ভব। সুতি কাপড়ে তৈরি লম্বা শার্ট, পাঞ্জাবি কাটের টপ, টিউনিক ও পশ্চিমা ধাঁচের টপের এখন বেশ চাহিদা।

মডেল: শাহ্‌তাজ, সাজ: বিন্দিয়া এক্সক্লুসিভ, পোশাক: বিবি প্রোডাকশনস, ছবি: কবির হোসেন

সুতি পোশাকের অনুষঙ্গ
পোশাকের সঙ্গে গয়না ও অন্যান্য অনুষঙ্গ নির্ভর করে নিজের ওপর। বিবি রাসেলের মতে, যিনি পরছেন তাঁর ব্যক্তিত্ব, কোন সময় আর কোথায় যাচ্ছেন—এসব বিষয় মাথায় রেখে গয়না বা অনুষঙ্গ বেছে নিতে হবে। সকালে কাজে বেরোলে হয়তো সারা দিনের জন্য বড় একটা ব্যাগ সঙ্গী হতে পারে। আবার রাতের অনুষ্ঠানে ছোট ব্যাগ নিলেই হচ্ছে। সুতি পোশাকের সঙ্গে কাচের চুড়ি, সুতার চুড়ি ও দেশীয় মালা বেশ মানানসই। রুপা, কাঠ, পুঁতি, কাপড় ও দেশীয় নানান উপকরণে তৈরি গয়না পরা যায়।

 

আরো সংবাদ...