গ্রেনেড হামলা মামলার রায়: কোন দিকে যাবে বাংলাদেশের রাজনীতি?

0
13

ঢাকা , ১০ অক্টোবর, (ডেইলি টাইমস ২৪):

যে কয়েকটি রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড প্রধান দুই বিরোধী দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে বৈরিতা আরও তীব্র করে তুলেছে, ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা ছিল তার অন্যতম।

ওই ঘটনা সম্পর্কে প্রথম থেকেই আওয়ামী লীগ অভিযোগ করে আসছিল তৎকালীন ক্ষমতাসীন বিএনপি এবং তাদের সহযোগীরাই এই হামলার পেছনে ছিল। পুরো শীর্ষ নেতৃত্বকে শেষ করে দেওয়ার চেষ্টা হয়েছিল সেদিন; সে কারণেই তারা এই ঘটনার সঠিক তদন্তে বারবার বাধা সৃষ্টি করেছে। আজকের রায়েও সে কথারই প্রতিফলন ছিল।

আওয়ামী লীগের অভিযোগ, বাংলাদেশে গণতন্ত্রে উত্তরণের কোনো রাজনৈতিক সমাবেশে এত বড় হত্যাকাণ্ড কখনো হয়নি। সেটির লক্ষ্য যে শেখ হাসিনাই ছিলেন, তাতে সন্দেহ নেই।

প্রশ্ন হচ্ছে, ১৪ বছর আগের সেই লোমহর্ষক ঘটনার মামলার রায়ের প্রভাব কী হবে বাংলাদেশের রাজনীতিতে, হলেও কতটা?

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক দিলারা চৌধুরীর মতে, এই রায় রাজনীতিতে বাড়তি কোনো প্রভাব ফেলবে না । কারণ, তার মতে, তারেক রহমানসহ বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্ব এরই মধ্যে বিভিন্ন মামলায় দণ্ডিত হয়েছেন।

দিলারা চৌধুরী বলেন, ‘আমার তো মনে হয় না এ রায় নতুন কিছু যোগ করবে। আগের রায়গুলোর মতো বিএনপি এবারও দেখানোর চেষ্টা করবে যে এটা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’

আওয়ামী লীগ বরাবরই বলে আসছে যে গ্রেনেড হামলার মাধ্যমে শেখ হাসিনাকে হত্যা করে বিএনপি ক্ষমতা পোক্ত করতে চেয়েছিল। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রাশেদা রওনক খান মনে করেন, দুই দলের মধ্যে যে গভীর তিক্ততা তৈরি হয়েছে, সেটি কাটবে কি না সন্দেহ আছে।

রাশেদা রওনক খান বলেন, ‘একটা দল যদি আরেকটি রাজনৈতিক দলের মূল উৎপাটন করতে চায় এবং তা হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে, সে রাজনৈতিক দল তো সেটা ভুলে যাবে না।’

গ্রেনেড হামলা মামলার মূল আসামি ছিলেন তারেক রহমান। গত ১১ বছর ধরে তিনি নির্বাসনে লন্ডনে আছেন। তিনি অচিরেই দেশে ফিরবেন, সে রকম কোনো সম্ভাবনাও নেই। এ মামলার রায়ের পর তার দেশে ফেরা আরও জটিল হয়েছে।

তারেক রহমানকে আদালত কী সাজা দেবে—সেটি নিয়ে অনেক জল্পনা ছিল। শেষ পর্যন্ত যাবজ্জীবন সাজা হয়েছে তার।

রাষ্ট্রবিজ্ঞানী দিলারা চৌধুরী মনে করেন, বিএনপিতে তারেক রহমানের নেতৃত্ব নিয়ে তেমন কোনো চ্যালেঞ্জ তৈরি হবে না। যারা বিএনপির সাপোর্টার, তারা তাকে সাপোর্ট করেই যাবেন। যারা আওয়ামী লীগের সাপোর্টার, তারা তাদের কথাই বলে যাবেন।

দিলারা চৌধুরী বলেন, ‘এই রায় থেকে আওয়ামী লীগ বাড়তি কোনো সুবিধা নিতে পারবে কি না, তা নির্ভর করবে আগামী দিনগুলোতে তাদের ভূমিকার ওপর। তারা (আওয়ামী লীগ) যদি এ থেকে রাজনৈতিক সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করে, তাহলে কিছুই বদলাবে না। কিন্তু তারা যদি এটা নিয়ে রাজনীতি না করে, তাহলে তাদের লাভ হবে।’

সূত্র: বিবিসি বাংলা