সারাদেশ

ছয় জেলায় আগামী এক মাস অতিরিক্ত ৮০ মেগাওয়াট লোডশেডিং

ঢাকা , ১১ অক্টোবর, (ডেইলি টাইমস ২৪):

বিদ্যুৎ লাইনের সংস্কার কাজের জন্য ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের ৬টি জেলার পিডিবির বিদ্যুতের উপর নির্ভরশীল প্রায় এক কোটি মানুষকে আগামী একমাস অতিরিক্ত লোডশেডিংয়ের বিড়ম্বনায় পড়তে হবে। জেলাগুলো হলো- ঢাকা বিভাগের টাঙ্গাইল ও কিশোরগঞ্জ এবং ময়মনসিংহ বিভাগের ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর ও নেত্রকোনা।পিডিবির বিজ্ঞপ্তি থেকে বিষয়টি জানা গেছে।
জানা যায়, আরও উন্নত পরিসেবা দেওয়ার জন্য পিডিবির আওতাধীন পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ (পিজিসিবি) আগামী শুক্রবার থেকে ময়মনসিংহ-আশুগঞ্জ ১৩২ কেভি ডাবল সার্কিট সঞ্চালন লাইনের আশুগঞ্জ-কিশোরগঞ্জ অংশের সার্কিট-১ এর সংস্কার (রিকন্ডাস্টরিং) কাজ শুরু করবে। সংস্কার কাজ চলবে আগামী এক মাস। সংস্কারকাজ চলাকালীন সময়ে ময়মনসিংহ-আশুগঞ্জ ১৩২ কেভি ডাবল সার্কিট সঞ্চালন লাইনের সার্কিট- ১ সঞ্চালন লাইনটি বন্ধ থাকবে। ফলে ময়মনসিংহ গ্রিড উপকেন্দ্রে ৭৫ থেকে ৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবারহ কমে যাবে।
পিডিবি সূত্রে জানা গেছে, বৃহত্তর ময়মনসিংহ বিভাগের ছয়টি জেলার জন্য ময়মনসিংহ গ্রিড উপকেন্দ্রে ৮৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবারহ করা হয়। এর মধ্যে আশুগঞ্জ গ্রিড উপকেন্দ্র থেকে ১৩২ কেভি ডাবল সার্কিট সঞ্চালন লাইনের মাধ্যমে ময়মনসিংহ গ্রিড উপকেন্দ্রে ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবারহ করা হয়। সার্কিট-১ সঞ্চালন লাইনটি বন্ধ করা হলে ৭৫ থেকে ৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবারহ কমে যেতে পারে।
গফরগাঁও বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী এজেডএম আনোয়ারুজ্জামান বলেন, গফরগাঁও অফিসের আওতায় ১৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। সংস্কার কাজ চলাকালীন সময় ১০ থেকে ১১ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবারহ করা হতে পারে। সন্ধ্যা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত লোডশেডিং দেওয়ার প্রয়োজন হতে পারে। বিষয়টি বিদ্যুৎ গ্রাহকদের অবগত করানোর মাইকিং করে প্রচার কাজ চালানো হয়েছে।
পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশের (পিজিসিবি) ময়মনসিংহ গ্রিড উপকেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদুল হক বলেন, আগামী এক মাসের মধ্যে সংস্কার কাজ শেষ হবে। সংস্কার কাজ শেষে এই সঞ্চালন লাইনের বিদ্যুৎ সরবারহ ক্ষমতা ২০০ মেগাওয়াট থেকে বেড়ে ৩০০ মেগাওয়াট হবে।

আরো সংবাদ...