নির্বাচনের কারণে এগিয়েছে ভর্তি কার্যক্রম

0
16

ঢাকা , ১১ অক্টোবর, (ডেইলি টাইমস ২৪):

বছর ঘুরে আবার এলো কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ‘ভর্তি মৌসুম’। প্রতি নভেম্বরে দেশের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়। চলে ডিসেম্বর অবধি। এটি সাধারণ প্রক্রিয়া হলেও জাতীয় নির্বাচনের কারণে এবার ভর্তির কার্যক্রম অন্তত ১৫ দিন এগিয়ে এনেছে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ গত বছর ২৫ অক্টোবর থেকে আবেদন নিয়েছিল। এবার আগামীকাল থেকে আবেদন নেবে। উদয়ন উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ও আবেদন নেয়ার সময় এগিয়ে এনেছে। প্রতিষ্ঠানটি ৩০ অক্টোবর থেকে অনলাইনে আবেদন নেবে। সরকারি হাইস্কুলের ভর্তি কার্যক্রমও এগিয়ে আনার লক্ষ্যে কার্যক্রম চলছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের (মাউশি) পরিচালক অধ্যাপক ড. আবদুল মান্নান যুগান্তরকে বলেন, বাস্তব পরিস্থিতির আলোকে এবার ভর্তি কার্যক্রম আগেই শুরু হতে পারে। নীতিমালার খসড়া তৈরি হচ্ছে।

প্রস্তাবিত নীতিমালায় সব সরকারি হাইস্কুলে অনলাইনে ভর্তি কার্যক্রম বাধ্যতামূলক করার কথা আছে। এছাড়া আগের তিন বছরের মতো এবারও এ ধরনের স্কুলে মোট আসনের ৫৯ শতাংশ কোটায় ভর্তির প্রস্তাব আছে। এগুলো হচ্ছে, ‘এলাকা’, ‘সরকারি প্রাইমারি স্কুল’, ‘মুক্তিযোদ্ধা’, ‘প্রতিবন্ধী’ এবং ‘শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারী’ কোটা। গত বছর সরকারি স্কুলে আবেদনের ফি ২০ টাকা বাড়িয়ে ১৭০ টাকা করে নেয়া হয়েছিল। তবে এবার বাড়ানোর চিন্তাভাবনা নেই।

এক হিসাবে দেখা গেছে, প্রতি বছর ঢাকায় গড়ে ২ লাখের বেশি শিশু প্রথম শ্রেণিতে ভর্তি হয়। কিন্তু মাত্র ৪৫-৫০ হাজার শিশু পছন্দের স্কুলে ভর্তি হতে পারছে। অপরদিকে ঢাকা শহরে প্রায় অর্ধলাখ কিন্ডারগার্টেন ও ইংরেজি মাধ্যম স্কুল রয়েছে। আছে তিন শতাধিক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। অবশ্য সরকারি প্রাথমিক স্কুলগুলো অভিভাবকদের পছন্দের বিচারে সামনের দিকে নেই। তবে এসব স্কুল আকর্ষণীয় করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান।

এ লক্ষ্যে প্রায় সাড়ে ১১শ’ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। সংশ্লিষ্টরা জানান, তবে নানা বিচারে হাইস্কুল সংলগ্ন প্রাথমিক স্তরে থাকা প্রতিষ্ঠানগুলো অভিভাবকদের কাছে বেশি জনপ্রিয়। এক্ষেত্রে রাজধানীর বেশির ভাগ সরকারি ও কিছু বেসরকারি হাইস্কুল পছন্দের শীর্ষে। সে কারণে ঢাকার ৩৭টি সরকারি হাইস্কুল এবং অর্ধশতাধিক নামকরা বেসরকারি হাইস্কুলে অভিভাবকরা ভর্তি মৌসুমে এক প্রকার হুমড়ি খেয়ে পড়েন।

ঢাকার বাইরে বড় শহরগুলোতে সরকারি হাইস্কুল অভিভাবকদের কাছে পছন্দের বিচারে শীর্ষে বলে জানা গেছে। ইতিমধ্যে রাজধানীর বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিশুদের ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। অভিভাবকদের পছন্দের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান ভিকারুননিসা নূন আগামীকাল থেকে অনলাইনে আবেদন নেবে। ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত আবেদন করা যাবে। আবেদন ফি ২০০ টাকা। প্রতিষ্ঠানটিতে প্রথম শ্রেণীর আবেদন শেষে উন্মুক্ত লটারির আয়োজন করা হবে। বিস্তারিত ওয়েবসাইটে আছে। ২য় থেকে ৮ম শ্রেণীতে ভর্তির সিদ্ধান্ত বার্ষিক পরীক্ষার পর।

প্রতিষ্ঠানটির গভর্নিং বডির এক সদস্য জানান, এবার বার্ষিক পরীক্ষার সময়সূচিও এগিয়ে আনা হয়েছে। আগামী ১৭ ডিসেম্বর এ পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে।

বেসরকারি হাইস্কুলে ভর্তির নীতিমালা অনুযায়ী, ৬ ও এর বেশি বয়সীরা প্রথম শ্রেণীতে ভর্তির আবেদন করতে পারছে। এর কম বয়সীদেরও বিভিন্ন স্কুল ভর্তি নিচ্ছে। সাধারণত রাজধানীর বিখ্যাত ও মানসম্মত স্কুলের বেশির ভাগে প্রাক-প্রাথমিক স্তর আছে। ওইসব প্রতিষ্ঠানে কোথাও শিশু শ্রেণী, কোথাও প্লে বা নার্সারি স্তর থেকে শিক্ষার্থী ভর্তি নেয়া হচ্ছে। এমন স্কুলগুলোর একটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে উদয়ন উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়।

প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ ড. উম্মে সালেমা বেগম যুগান্তরকে বলেন, ‘আমরাও শিশু শ্রেণীতে শিক্ষার্থীর এন্ট্রি পয়েন্ট করেছি।’ এবার দ্বিতীয় থেকে নবম শ্রেণীতেও শিক্ষার্থী ভর্তি নেয়া হবে। প্রথম শ্রেণীতে আসন খালি নেই।

জানা গেছে, এই স্কুলে ৩০ অক্টোবর থেকে আবেদন করা যাবে। ৬ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে অনলাইনে আবেদন কার্যক্রম। এই স্তরে বাংলা ভার্সনে ১২০ এবং ইংরেজি ভার্সনে ৬০ জন নেয়া হবে এবার। দু-একদিনের মধ্যে ভর্তির সার্কুলার জারি করা হবে। রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল ও কলেজে ভর্তির আবেদন নেয়ার সময়সূচি নির্ধারণ করা হয়নি। উইলস লিটল স্কুল ও কলেজে আগামী সপ্তাহে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

ইঞ্জিনিয়ারিং ইউনিভার্সিটি গার্লস স্কুল ও কলেজে নার্সারি শ্রেণী থেকে ভর্তি নেয়া হয়। আগামী ১৭ নভেম্বর থেকে প্রতিষ্ঠানটি আবেদন নেবে বলে জানান এর প্রধান শিক্ষক আশুতোষ চন্দ্র সরকার। ইঞ্জিনিয়ারিং ইউনিভার্সিটি স্কুল ও কলেজে প্রথম শ্রেণীতে ভর্তি নেয়া হবে না। দ্বিতীয় শ্রেণীতে ভর্তির ফরম বিতরণ শুরু হবে নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে।

সরকারি হাইস্কুলে ভর্তি : সরকারি হাইস্কুলের ভর্তির বিষয়ে দু-চারদিনের মধ্যে মন্ত্রণালয়ে বৈঠক করা হবে বলে জানা গেছে। রাজধানীর ৩৭টি হাইস্কুলের মধ্যে ১৬টিতে প্রথম শ্রেণী আছে। বাকি স্কুলের কোনোটিতে তৃতীয় বা তার ওপরের বিভিন্ন শ্রেণীতে আসন খালি থাকা সাপেক্ষে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হয়। গত বছর ৩০ নভেম্বর দিবাগত রাতে এসব স্কুলে ভর্তির আবেদন নেয়া শুরু হয়।