রাজনীতি

খালেদা জিয়াকে বিনা চিকিৎসায় মেরে ফেলতে চাচ্ছে সরকার: জয়নুল

ঢাকা , নভেম্বর , (ডেইলি টাইমস২৪):

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা শেষ করার আগেই তাকে কারাগারে নিয়ে গিয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির (বার) সভাপতি জয়নুল আবেদীন।

৮ নভেম্বর, বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে সুপ্রিম কোর্টের শহিদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে বার আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন অভিযোগ করেন।

জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘আদালতকে না জানিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাসপাতাল থেকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া আদালত অবমাননার শামিল। আদালতের নির্দেশে চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু কোনো নোটিশ ছাড়াই তাকে বৃহস্পতিবার ফের কারাগারে নেওয়া হয়েছে।’

‘আমরা খালেদা জিয়ার পক্ষে আদালতের নজরে বিষয়টি এনেছি। আদালত বলেছেন, তাদের জানানো হয়নি। সরকার খালেদা জিয়াকে বিনা চিকিৎসায় মেরে ফেলতে চাচ্ছে।’

খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার বিষয়ে বারের সভাপতি বলেন, ‘হাইকোর্টের নির্দেশে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি করা হয়। সেখানে তার সঙ্গে আজ পর্যন্ত কোনো আইনজীবী দেখা করতে পারেনি।’

‘দলের মহাসচিব, স্থায়ী কমিটির সদস্যরা কেউই খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পারেননি। দেখা করতে দেওয়া হয়নি। তার (খালেদা জিয়া) আত্মীয়-স্বজনরাও নিয়মিত দেখা করতে পারেননি। বৃহস্পতিবার তাকে কারাগারে নেওয়ার আগে বিষয়টি আদালতকে জানানো উচিত ছিল।’

খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার বিষয়ে জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘গত ৬ নভেম্বর আমরা দেখা করার জন্য আবেদন করেছিলাম। কিন্তু আমাদের অনুমতি দেওয়া হয়নি। তিনি কেমন আছেন, তা এখনো অবহিত নই।’

‘অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, সকালবেলা খবর পেলাম যে, মাত্র আধ ঘণ্টার নোটিশে খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেওয়া হয়েছে। আমরা মনে করি, এতে বিচার বিভাগের প্রতি অবজ্ঞা করা হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা এবং গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের দাবিতে আগামী ১৭ নভেম্বর আইনজীবীদের মহাসমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সহ-সভাপতি গোলাম মোস্তফা, গোলাম রহমান ভূঁইয়া, কোষাধ্যক্ষ নাসরিন আক্তার, সিনিয়র সহ-সম্পাদক কাজী মো. জয়নুল আবেদীন, অ্যাডভোকেট মো. ফারুক হোসেন, মাহফুজ বিন ইউসুফ, ব্যারিস্টার শফিউল আলম মাহবুব, ব্যারিস্টার একেএম এহসানুর রহমানসহ বিএনপি-সমর্থিত আইনজীবীরা।

আরো সংবাদ...