ভাবির পা ছুঁয়ে শ্রদ্ধা জানাতেন অনিল কাপুর

0
37

ঢাকা , ডিসেম্বর , (ডেইলি টাইমস২৪):

একসঙ্গে অনেক ছবি করেছেন শ্রীদেবী ও অনিল কাপুর। এমনকি বহু ছবি হিট হয়েছে তাঁদের। জুটি হিসেবেও সফল। কিন্তু যখনই দুজনের দেখা হতো, শ্রীদেবীর পা ছুঁয়ে শ্রদ্ধা জানাতেন বলিউড তারকা অনিল কাপুর। কেন?

জনপ্রিয় জুটি শ্রীদেবী ও অনিল কাপুর একসময় একে অন্যের আত্মীয় হয়ে যান। অনিলের বড় ভাই বনি কাপুর বিয়ে করেন শ্রীদেবীকে। ভাবির প্রতি ভীষণ শ্রদ্ধাশীল ছিলেন অনিল কাপুর। যেখানে যে অবস্থায় দেখা হতো, ভাবির পা ছুঁয়ে শ্রদ্ধা জানাতেন তিনি। কেননা, অনিল কাপুরের ক্যারিয়ারে শ্রীদেবীর অবদান ছিল অনেক।

স্টার প্লাসের অনুষ্ঠান ‘ড্যান্স প্লাস’-এর চতুর্থ মৌসুমের শুটিং চলছে। এরই একটি পর্বে শ্রীদেবীর প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হবে। সেই পর্বের শুটিংয়ে অংশ নিয়েছিলেন অনিল কাপুর। সেখানে শ্রীদেবীকে নিয়ে অনেক কথা বলেছেন এই অভিনেতা। একজন শিল্পী হিসেবে অনিলের কাছে শ্রীদেবীর অবস্থান কোথায়, তা নিয়ে কথা বলেছেন তিনি। এই শ্রদ্ধা কখনো কখনো বিব্রত করত শ্রীদেবীকে। তিনি নিষেধ করতেন, ‘এমন করো না অনিল।’

ভাবির প্রতি অনিল কাপুর শ্রদ্ধাশীল থাকবেন না কেন? ছোট্ট একটি ঘটনার কথা স্মরণ করে অনিল কাপুর বলেছেন, ‘শুটিংয়ে এমন অনেক দৃশ্য থাকত, যেগুলোতে আমি একা করতাম, তিনি থাকতেন না। সেই দৃশ্যগুলো বসে মন দিয়ে দেখতেন তিনি যে, আমি ঠিকমতো সেগুলো করছি কি না।’ তিনি বলেন, ‘শিল্পী হিসেবে আমি ধন্য যে তাঁর সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। আমার ক্যারিয়ারে তাঁর অবদানের কথা বলে শেষ করা যাবে না। তিনি একজন অসাধারণ মেধাবী শিল্পী, যিনি পর্দায় জাদুমন্ত্র ছড়াতেন। তাঁকে বেদনার্ত হৃদয়ে স্মরণ করা ঠিক হবে না। তাঁকে আনন্দ ও ভালোবাসার মধ্য দিয়ে স্মরণ করা উচিত।’

চলতি বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ের একটি হোটেলে মারা যান শ্রীদেবী। তাঁর অকালমৃত্যুতে শোকে মুহ্যমান হয়ে যায় সারা বিশ্ব। বনি কাপুরের ভাগনের বিয়েতে যোগ দিতে দুবাই গিয়েছিলেন তিনি। পুরো পরিবার যখন মুম্বাই ফিরে গিয়েছিল, কেনাকাটার জন্য শ্রীদেবী সেখানে থেকে গিয়েছিলেন। ঘটনার রাতে স্বামী বনি কাপুরের সঙ্গে খেতে যাওয়ার কথা ছিল তাঁর। দুবাইয়ের জুমেইরাহ অ্যামিরেটস টাওয়ার হোটেলে নিজের কক্ষে ছিলেন তিনি। খেতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিতে ঢুকেছিলেন বাথরুমে। ১৫ মিনিট পরও যখন বাথরুম থেকে বের হচ্ছিলেন না, তখন বনি দরজা ধাক্কা দেন। কিন্তু শ্রীদেবীর কোনো সাড়া পাননি। দরজা ভেঙে তিনি শ্রীদেবীকে মৃত অবস্থায় বাথটাবের মধ্যে পান।

মায়ের মৃত্যুর পর সামাজিক মিডিয়ায় এক হৃদয়বিদারক পোস্ট লিখেছিলেন শ্রীদেবীকন্যা জাহ্নবী কাপুর। তিনি লেখেন, ‘বুকের ভেতর একটা শূন্যতা মোচড় দিচ্ছে। জানি, আমাকে সেটার সঙ্গেই বাঁচতে শিখতে হবে।’ ভারতের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে তিনি বলেছিলেন, ‘বছরটা আমার জন্য সব থেকে আনন্দের এবং একই সঙ্গে বেদনার। যখন থেকে বড় হতে শুরু করি, শিল্প জিনিসটা বুঝতাম না। আমার পরিবার এখন যূথবদ্ধ, সেটাই আমার জন্য বড় ব্যাপার। বাবা-মাকে গর্বিত করার সুযোগ পেয়েছি, এটাই আমার কাছে এখন গুরুত্বপূর্ণ।’

শ্রীদেবীর মৃত্যুর পর বনি কাপুর বলেছিলেন, ‘এই শূন্যতা অপূরণীয়। কোনো কিছুতেই এ ক্ষতি পূরণ হবে না। যে শুভকামনা ও সম্মান সে আমাদের জন্য রেখে গেছে, সেসব নিয়েই আমাদের বাঁচতে হবে। সে আমার সঙ্গে, আমার সন্তানদের সঙ্গে আছে। আমি প্রতিমুহূর্তে তার শূন্যতা অনুভব করি। কেবল আমিই নই, আমার সন্তানেরাও করে। কিন্তু এই শূন্যতা নিয়েই আমাদের বাঁচতে হবে।’