স্ত্রীকে খুন করে ৭ মাস ধরে অনলাইনে জীবিত দেখালেন স্বামী

0
43

ঢাকা , ডিসেম্বর , (ডেইলি টাইমস২৪):

ঘটনার বিস্তারিত সম্পর্কে জানা যায়, অভিযুক্ত ওই চিকিতসকের নাম ড. ধর্মেন্দ্র প্রতাপ সিংহ। ভারতের উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুরের এলাকায় বেশ সুনামও আছে তার।

পুলিশ জানান, তিনি তার সাবেক স্ত্রী রাখি শ্রীবাস্তবকে প্রায় ৭ মাস আগে হত্যা করেন। কিন্তু বেঁচে রেখেছিলেন সামাজিক মাধ্যমে। কেননা স্ত্রীকে খুন করার পর স্ত্রীর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিয়মিত আপডেট দিতেন তিনি।

তবে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে ওই চিকিৎসককে ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এছাড়া তার দুই সহযোগীকে প্রমোদ কুমার ও দেশ দীপক নিসাদকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাদেরকে শনিবার জেলে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানান, চলতি বছরের জুন মাস থেকে নিখোঁজ হন রাখি শ্রী্বাস্তব। এজন্য রাখির পরিবার থানায় মামলা দায়ের করেন তার দ্বিতীয় স্বামী মনিষ সিংহের বিরুদ্ধে। পুলিশ পরে তাকে আটক করে। শুরু করে জেরা। একপর্যায়ে তদন্ত করতে গিয়ে দেখতে পান রহস্যের জাল।

পুলিশ জানায়, তদন্ত করতে গিয়ে দেখি ঘটনা বেশ জটিল। একপর্যায়ে একটি সূত্র পাই। দেখা যায় তার প্রথম স্বামী এতে জড়িত।

রাখির সঙ্গে তার দ্বিতীয় স্বামী গত ১ জুন নেপালে যায়। কিন্তু তার স্বামী ফিরলেও নেপালে থেকে যায় রাখি। রাখির সঙ্গে কোন প্রকার যোগাযোগ করতে না পেরে তার ভাই জুনের ২৪ জুন থানায় মামলা করেন।

পুলিশ তদন্তের জন্য এসময় তার প্রথম স্বামীর ফোনে ট্রেস করে দেখেন একই সময়ে নেপালে যান ধর্মেন্দ্র প্রতাপ সিংহ। নেপালে তার ফোন ১-৪ জুন পর্যন্ত খোলা পাওয়া যায়।

এসময় তদন্তকারী দল নেপালে গেলে সেখানকার স্থানীয় পুলিশ জানায় তারা একটি মহিলার মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। আর সেটি ছিল রাখির।

পরে তদন্তকারীর কাছে রাখিকে হত্যার কথা স্বীকার করে ধর্মেন্দ্র। নেপালের পোখরার একটি খাদে ধাক্কা মেরে হত্যা করেন রাখিকে। তিনি বলেন, স্ত্রীর সম্পত্তি হাতিয়ে নেওয়ার জন্য তাকে হত্যা করেন। আর এজন্য তাকে জীবিত দেখানোর জন্য তার সামাজিক মাধ্যমে নিয়মিত পোস্ট করতো।