‘বন্দুকযুদ্ধে অপহরণকারী’ নিহত, মিলল শিশুটির লাশ

0
26

ঢাকা , ০৯ জানুয়ারি , (ডেইলি টাইমস২৪):

অপহৃত শিশুকে উদ্ধার করতে গিয়ে ‘অপহরণকারীদের’ সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’ হয়েছে। এতে বিল্লাল হোসেন (১৯) নামের এক কিশোর নিহত হয়। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাতে যশোরের মনিরামপুর উপজেলার সাতনল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে সেখানে অপহৃত তারিফ ছিল না। পরে একটি কালভার্টের নিচ থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশের তথ্যমতে, গতকাল দিবাগত গভীর রাত পৌনে তিনটার দিকে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত বিল্লাল অপহরণকারী দলের সদস্য। নিজ দলের সদস্যদের গুলিতেই তিনি নিহত হয়েছেন। তাঁর বাড়ি মনিরামপুরের খেদাইপুর গ্রামে। অপহৃত তারিফ হোসেন (৯) একই গ্রামের সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে। সে স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র ছিল।

মনিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সহিদুল ইসলাম জানান, গত রোববার তারিফকে অপহরণ করা হয়। অপহরণকারীরা শিশুটির পরিবারের কাছে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। এতে রাজি হয় পরিবার। পরদিন সোমবার তারিফের বাবা থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। এরপর পুলিশ প্রযুক্তি ব্যবহার করে অপহরণকারীদের শনাক্ত করে। একজন অপহরণকারীর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী গতকাল রাতে তারিফকে উদ্ধারের জন্য উপজেলার সাতনল এলাকায় যায় পুলিশের একটি দল। রাত পৌনে তিনটার দিকে অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে শুরু করে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এ সময় দৌড়ে পালাতে গিয়ে অপহরণকারী চক্রের গুলিতেই নিহত হন বিল্লাল হোসেন। পরে বিল্লালের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি ওয়ান শুটার গান ও একটি গুলি উদ্ধার করে।

ওসি জানান, পরে ভোর রাত চারটার দিকে উপজেলা খেদাইপুর কালভার্টের নিচ থেকে অপহৃত শিশু তারিফ হোসেনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।