যবিপ্রবির উপাচার্য-শিক্ষকের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা

0
15

ঢাকা , ১৪ জানুয়ারি , (ডেইলি টাইমস২৪):

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক পরিষদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে মানহানির দুটি মামলা করেছেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল।

অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে দায়ের করা মামলায় ৫০০ কোটি ও ১০ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ দাবি করা হয়েছে। আদালত মামলা দুটির বিষয়ে কোনো আদেশ দেয়নি।

একটি মামলার বিবাদী করা হয়েছে উপাচার্য ড. আনোয়ার হোসেন ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. ইকবাল কবির জাহিদকে। অপর মামলায় বিবাদী করা হয়েছে ড. ইকবাল কবির জাহিদ ও শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসানকে।

প্রথম মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, অভিযুক্ত দুই জন বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৮ ও ২০১৯ সালের ক্যালেন্ডার মুদ্রণের দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন। বিলি করা ওই ক্যালেন্ডারে ইচ্ছাকৃতভাবে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ফুটো করে স্পাইরাল বাইন্ডিং করেছেন। এবং বঙ্গবন্ধুর ছবি জলছাপ দিয়ে বিকৃত করা হয়েছে।

এ ছাড়া ২০১৯ সালের ক্যালেন্ডারে জাতির জনকের শাহাদৎবার্ষিকীর তারিখ দিয়ে ৩শ’ তম বার্ষিকী ছাপা হয়েছে। মামলার অভিযোগে বলা হয়েছে, বাদী মনে করছেন জাতির জনক ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃত করে ৫০০ কোটি টাকার মানহানি করা হয়েছে।

অপর মামলায় আনোয়ার হোসেন বিপুল অভিযোগ করেছেন, গত ০৮ জানুয়ারি বিকেল ৫টায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. ইকবাল কবির জাহিদ ও সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসান বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা থেকে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতীক নৌকার একটি প্রতিকৃতি পুড়িয়ে ফেলেন। এ বিষয়ে তিনি (বিপুল) তার কাছে ফোনে জানতে চাইলে ছাত্রলীগ নিয়ে বিভিন্ন কটূক্তিমূলক কথা বলেন। এবং তার নামে থানায় মিথ্যা অভিযোগের জিডি করেন এবং পত্র-পত্রিকায় আপত্তিকর কথা বলেন। বিবাদীরা তার ১০ কোটি টাকার মানহানি ঘটিয়েছেন।

মামলার পর আনোয়ার হোসেন বিপুল যশোর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেন।