নতুন ধারার চলচ্চিত্রে তিশা-ইয়াশ

0
57

ঢাকা , ১৪ ফেব্রুয়ারি , (ডেইলি টাইমস২৪):

ইন্টারঅ্যাকটিভ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘কিন্তু, যদি এমন হতো?’। নির্মাতা ইমরান ইমনের মতে, বাংলাদেশে এই ধারার চলচ্চিত্র এটাই প্রথম। যা মুক্তি পেয়েছে আজ (১৪ ফেব্রুয়ারি), ভালোবাসা দিবসকে কেন্দ্র করে।

নির্মাতা জানান, এই ছবিটির অভিনব ব্যাপার হচ্ছে, দর্শকরা নিজেদের ইচ্ছানুযায়ী কয়েক ধরনের পরিণতি দিতে পারবেন এটাকে। এর দৈর্ঘ্যও নির্ভর করবে দর্শকের নেওয়া সিদ্ধান্তের ওপর!
নুসরাত ইমরোজ তিশা ও ইয়াশ রোহান অভিনীত এই ছবিটি প্রযোজনা করেছে হাউ’স দ্যাট? প্রোডাকশন এবং দর্শকদের জন্য এটি উন্মুক্ত করেছে টেকনো মোবাইল।
সিনেমাগত প্রযুক্তির বিবর্তনের নতুন সংযোজন ‘ইন্টারঅ্যাকটিভ স্টোরি টেলিং’। এ ক্ষেত্রে, দর্শকদের জন্য সুযোগ থাকে গল্পের কোনও এক মুহূর্তে কাহিনি নিজের মতো নির্বাচনের। যেখানে দর্শক তার পছন্দ অনুযায়ী গল্প শেষ করতে পারবেন।

মুঠোফোন প্রতিষ্ঠান টেকনো প্রেজেন্টস ‘কিন্তু, যদি এমন হতো?’ উন্মুক্ত হলো https://kintujodi.com/ নামের একটি স্বতন্ত্র ওয়েবসাইটে।
এর গল্প আবর্তিত হয়েছে দু’টি আলাদা শহরে বাস করা ডাক্তার ফাহাদ ও বুশরাকে ঘিরে। দূরত্বের কারণে তাদের সম্পর্কের জটিলতাকে ঘিরেই এর গল্প।
এ নিয়ে নির্মাতা ইমরান ইমন বলেন, ‘প্রতিটা ফিল্মই আসলে নতুন এক্সপেরিয়েন্স। আর এই শর্টফিল্মটা একটু ডিফারেন্ট, টেকনিক্যালি বা যে কোনও দিকেই। অভিজ্ঞতাটা বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষের জন্যই নতুন, তাই আমার টিমের সবাই সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে যেন কাজটা সবদিক দিয়ে ভালো হয়। বাকিটা দর্শকদের ওপর। গল্প বলার নতুন এই ধরন আশা করি সবার ভালো লাগবে।’
নিজের চরিত্র প্রসঙ্গে নুসরাত ইমরোজ তিশা বলেন, ‘কাজটির ধরন বেশ আলাদা ছিলো বলেই করলাম। এখন বাকিটা দর্শকদের ওপরে। এখানে গল্প বলার ধরনে পরিবর্তন আনার ক্ষেত্রে একটা দারুণ সূচনা হলো।’
‘স্বপ্নজাল’খ্যাত অভিনেতা ইয়াশ রোহান বলেন, ‘‘আমি সবসময়ই অভিনয়ের বৈচিত্র্যে বিশ্বাসী। ‘স্বপ্নজাল’- এর পরে দর্শকরা আবার আমাকে নতুনভাবে খুঁজে পাবে এখানে। আমার বিশ্বাস, তারা আমার চরিত্রটি পছন্দ করবে।’’
ছবিটির টিজার:

প্রসঙ্গত, ১৯৬৭ সালে মুক্তি পাওয়া চেকস্লোভিয়ার চলচ্চিত্র ‘কিনোঅটোম্যাট’ বিশ্বের প্রথম ইন্টারঅ্যাকটিভ চলচ্চিত্র।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here