জাতীয়

আম বাগানে পুলিশ ঠেকাতে হাইকোর্টের নির্দেশ স্থগিত চায় রাষ্ট্রপক্ষ

ঢাকা , ১৫ এপ্রিল , (ডেইলি টাইমস২৪):

আম বাগানে ক্ষতিকর কেমিকেলের ব্যবহার রোধে রাজশাহী এবং দেশের বড় বড় আম বাগানগুলোতে পুলিশ মোতায়েন করতে হাইকোর্টের দেওয়া নির্দেশ স্থগিত চায় রাষ্ট্রপক্ষ। একারণে গত ৯ এপ্রিল হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালতে আবেদন করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। আজ সোমবার এ আবেদন করা হয়। আগামীকাল মঙ্গলবার এ আবেদনের ওপর চেম্বার বিচারপতির আদালতে শুনানি হবে বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল সাইফুল আলম।

আজ আবেদনটি চেম্বার বিচারপতি মো. নুরুজ্জামানের আদালতে উপস্থাপন করা হলেও রিট আবেদনকারীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদের সময় আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আজ মঙ্গলবার শুনানির জন্য দিন ধার্য করা হয়েছে।

মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) করা এক আবেদনে হাইকোর্ট গত ৯ এপ্রিল এক আদেশে সাতদিনের মধ্যে পুলিশ মোতায়েনের নির্দেশ দেন। পুলিশের আইজি, রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি এবং জেলা প্রশাসনের প্রতি এ নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে ঢাকাসহ সারাদেশে ফলের বাজার ও আড়তে আমসহ অন্যান্য ফলে কেমিকেল ব্যবহার করা হচ্ছে কিনা তা মনিটর করতেও নির্দেশ দেওয়া হয়। এজন্য পুলিশ, র‌্যাব, বিএসটিআই ও জেলা প্রশাসনের সমন্বয়ে টিম গঠন করতে বলা হয়। এসব আদেশ কার্যকর করে একমাসের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে খাদ্য, স্বরাষ্ট্র ও শিল্প সচিব, এনবিআর চেয়ারম্যান, পুলিশের আইজি, র‌্যাবের মহাপরিচালক, বিএসটিআইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও পরিচালক (কেমিকেল টেস্টিং উইং), রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার এবং পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজিকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

এর আগে এইচআরপিবি’র করা এক রিট আবেদনে ২০১২ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি এক রায়ে হাইকোর্ট আম বাগানে আইন শৃংখলাবাহিনী মোতায়েনের নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে আমদানি করা ফল-এ রাসায়নিক দ্রব্য মেশানো হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত হতে স্থল ও সমুদ্র বন্দরসহ সকল আমদানি পয়েন্ট-এ ফল পরীক্ষার ব্যবস্থা (কেমিকেল টেস্টিং ইউনিট) চালু করার নির্দেশ দেওয়া হয়। ফল-এ রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করার নির্দেশ দেওয়া হয়। এছাড়া কাচা আম পাকাতে কেমিকেলের ব্যবহার বন্ধের জন্য ৬ মাসের মধ্যে একটি গাইডলাইন তৈরি করার নির্দেশ দেওয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় এইচআরপিবি’র করা এক সম্পূরক আবেদনে হাইকোর্ট পুলিশ মোতাযেনের নির্দেশ দেন।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button