লাইফস্টাইল

মাত্র ৪ দিনে ২ কেজি ওজন কমাতে ঝটপট “গাজর” ডায়েট

ঢাকা, ১৪ জুন ( ডেইলি টাইমস্২৪): অনেকেই ওজন সমস্যায় ভুগছেন। কিন্তু কিভাবে ওজন কমাবেন বুঝতে পারছেন না। কিভাবে ডায়েট করলে ওজন কমে সেই সম্পর্কেও ধারণা নেই অনেকেরই। যারা ডায়েট করে ওজন কমানোর কথা ভাবছেন তারা বেছে নিতে পারেন ৪ দিনের গাজরের ডায়েট। তাহলে শুনে রাখুন, মাত্র ৪ দিনের ডায়েটেই ২ কেজি পর্যন্ত ওজন কমাতে পারবেন আপনি। আর তাও একদম ব্যায়াম ছাড়াই!

একটি বড়মাপের গাজর থেকে ২২ ক্যালোরি শক্তি পাওয়া যায়। পুষ্টি বিজ্ঞানীদের মতে, ১০০ গ্রাম খাদ্যোপযোগী গাজরে আছে কার্বোহাইড্রেট-১০ দশমিক ৬ গ্রাম, প্রোটিন শূন্য দশমিক ৯ গ্রাম, ফ্যাট শূন্য দশমিক ২ গ্রাম, আঁশ ১ দশমিক ২ গ্রাম, নিকোটিনিক এসিড শূন্য দশমিক ৬ মিলিগ্রাম,

ভিটামিন ‘এ’ ৩১৫০ আইইউ, ক্যালসিয়াম ৮০ মিলিগ্রাম, পটাসিয়াম ১০৮ মিলিগ্রাম, ফসফরাস ৩০ মিলিগ্রাম, লোহা ১ দশমিক ৫ মিলিগ্রাম, থায়ামিন দশমিক শূন্য ৪ মিলিগ্রাম।

আসুন জেনে নেয়া যাক ৪ দিনের গাজর ডায়েটের নিয়মাবলী-
ডায়েটের নিয়মাবলী:

গাজর খেয়ে ডায়েট করতে হলে আপনার সারা দিনের প্রধান খাবারটি হবে হলো গাজর। দিনরাত মিলিয়ে কম পক্ষে ৪ বার পেট ভরে অনেক গুলো করে গাজর খেতে হবে আপনার।

গাজর সিদ্ধ করে, কাঁচা কিংবা সালাদ করে যেভাবে খুশি খেতে পারেন আপনি। তবে সালাদ বানিয়ে খাওয়ার সময় অবশ্যই মেয়োনেজ, তেল অথবা পনির ব্যবহার করবেন না। শুধুমাত্র গাজর, লেবুর রস, ধনিয়া পাতা, কাঁচা মরিচ বা গোল মরিচের গুঁড়ো ব্যবহার করতে পারেন।

এই ৪দিন গাজর, গ্রিন টি আর পানি ছাড়া কিছুই খেতে পারবেন না আপনি। খুব বেশি স্বাদ পরিবর্তন করতে ইচ্ছে করলে এক বেলা গাজরের সাথে আপেল মিশিয়ে সালাদ করে খেতে পারেন।

গাজরের ডায়েট চলাকালীন সময়ে সুস্থ থাকতে চাইলে প্রতিদিন কমপক্ষে ৩ লিটার করে পানি খেতে হবে। পানি কম খেয়ে শরীরে পানি শূন্যতা দেখা দিবে এবং শরীরে সতেজতা থাকবে না। তাই ডায়েটের পাশাপাশি প্রচুর পানি পান করুন।

ডায়েট চলাকালীন সময়ে চা খেতে হলে গ্রীন টি পান করুন। চা খেতে ইচ্ছে করলেই বানিয়ে ফেলুন এক কাপ গ্রিন টি। গ্রিন টি ওজন কমাতে সহায়ক।

সতর্কতা:

গাজর খাওয়ার আগে অবশ্যই ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে।

গাজরের খোসা ছাড়িয়ে নিন সম্ভব হলে। কারণ ইদানিং সবজিতে নানান রকম ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান ব্যবহার করা হয়।

ডায়েট চলাকালীন সময়ে পানি খাওয়া কমাবেন না।

কোনো অসুখ থাকলে বা ওষুধ সেবন করতে হলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ডায়েট করবেন না।

এই ডায়েট ৪ দিন বা খুব বেশি হলে ৫ দিন পর্যন্ত করুন। এক মাসে একবারই করতে পারবেন এই ডায়েট।

ডায়েট চলাকালীন সময়ে জীম কিংবা অতিরিক্ত শারীরিক পরিশ্রম করবেন না।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button