জাতীয়

ইস্কাটনে জোড়া খুন, কারাগারে নেশার ওয়ার্ডে এমপিপুত্র রনি

ঢাকা, ১৫জুন ( ডেইলি টাইমস্২৪): 

মধ্য রাতে গুলি করে দু’জনকে খুন করার অভিযোগে সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি পিনু খানের ছেলে বখতিয়ার আলম রনিকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নেয়ার পরই কারা হাসপাতালের নেশাগ্রস্তদের ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। ‘অসুস্থ’ না হয়েও তিনি কারা হাসপাতালে ভর্তি হয়ে বাইরের মুখরোচক খাবার খেয়ে ফুরফুরে মেজাজে সময় পার করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এমপিপুত্রের চিকিৎসার ব্যাপারে কারা হাসপাতালের সহকারী সার্জন জানান, আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তবে রনি থেলাসেমিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার কথা জানালেও এ-সংক্রান্ত কাগজ দেখাতে পারেননি।
১৩ এপ্রিল মধ্য রাতে রাজধানীর নিউ ইস্কাটন এলাকায় নেশাগ্রস্ত অবস্থায় গাড়ি থেকে এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়েন আওয়ামী লীগের এমপি পিনু খানের ছেলে বখতিয়ার আলম রনি। ওই গুলিতে অটোরিকশা চালক ইয়াকুব আলী ও রিকশাচালক আবদুল হাকিম নিহত হন।
হাকিমের মা মনোয়ারা বেগম গত ১৫ এপ্রিল এ ঘটনায় রমনা মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর দীপক কুমার দাস মামলাটি তদন্ত করছেন। মামলা করার পর পুলিশ গত ৩১ মে বখতিয়ার ও তার গাড়িচালক ইমরান ফকিরকে গ্রেফতার করে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বখতিয়ারকে ৯ জুন চার দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়। গত শনিবার রিমান্ড শেষে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
কারাগার সূত্র জানায়, শনিবার কারাগারে যাওয়ার পরপরই রনিকে কারা কর্তৃপক্ষ ১৭২ শয্যার কারা হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করেন। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত তিনি হাসপাতালের ১ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। সকাল, দুপুর আর বিকেল পর্যন্ত তিনি কারাগারের বাইরে থেকে পাঠানো মুখরোচক খাবার খেয়েছেন। অথচ যারা প্রকৃত অসুস্থ তাদের অনেকেই কারা হাসপাতালের মাটিতে শুয়ে চিকিৎসা নিতে বাধ্য হচ্ছেন বলে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
গতকাল সন্ধ্যার আগে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সহকারী সার্জন বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস নয়া দিগন্তকে বলেন, এমপিপুত্র রনি কারাগারে আসার পরই আমরা তাকে আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দিয়েছি। বর্তমানে তাকে কারা হাসপাতালে ‘নেশার ওয়ার্ডে’ ভর্তি করে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেছি। দেয়া হয়েছে প্রয়োজনীয় ওষুধ। এমপিপুত্র কী ধরনের অসুস্থতায় ভুগছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার অসুস্থতা খুব একটা সিরিয়াস না। তবে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে বুকের ব্যথা ও ড্রাগ এডিক্টেডের ওপর চিকিৎসা নেয়ার কাগজপত্র দেখিয়েছেন। রনি আমাকে বলেছেন, তার এ দু’টি সমস্যা ছাড়াও থেলাসেমিয়া আছে। কিন্তু এ-সংক্রান্ত কোনো কাগজ দেখাতে পারেননি। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, কারা হাসপাতালে নেশার ওয়ার্ডে প্রতিদিন যেসব নেশার রোগী ভর্তি হচ্ছেন, ওই ওয়ার্ডেই তাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। খাচ্ছেন কারাগারের স্বাভাবিক খাবার। বাইরের খাবার তিনি খেয়েছেন কি না তা আমি বলতে পারব না। বর্তমানে কারা হাসপাতালে ভিআইপি বন্দী হিসেবে তিনি রয়েছেন বলে জানান কারা হাসপাতালের সার্জন বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস।
গত রাতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার ফরমান আলী নয়া দিগন্তকে বলেন, এমপিপুত্র রনি রিমান্ড থেকে ফেরার পর তাকে কারাগারের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আদালত জেল কোড অনুযায়ী তার চিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দেয়া হয়। তবে তার কী অসুখ তা আমি জানি না।
এ দিকে এমপিপুত্র রনিকে আলোচিত এই জোড়া খুনের অভিযোগ থেকে বাঁচাতে একটি প্রভাবশালী মহল মরিয়া হয়ে উঠেছে। মামলার তদন্ত দুর্বল এবং রনির সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিতের জন্য চেষ্টা চলছে বলেও নিশ্চিত করেছে একাধিক সূত্র।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button