বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

এক নজরে অ্যাপলের নতুন দুই ওএস

ম্যাকরিউমার্স ডটকমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ছোট ছোট বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে অ্যাপলের নির্মিত মোবাইল ডিভাইসের জন্য তৈরি আইওএস ৯-এ। প্রাথমিক অবস্থায় ওই পরিবর্তনগুলো চোখ এড়িয়ে যেতে পারে, তবে এর উপকারিতা টের পাওয়া যাবে কাজের সময়।

ব্যাটারি লাইফ বাড়াবে আইওএস ৯। তুলনামূলক কম মেমোরি জুড়ে থাকবে অপারেটিং সিস্টেমটি, ফলে আলাদা সুবিধা পাবেন ১৬ জিবি মেমোরির ডিভাইস ব্যবহারকারীরা। আইওএস ৯-এ নাকি আরও ‘বুদ্ধিমান’ হয়েছে ডিজিটাল ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্ট সিরি। দৈনন্দিন জীবনের কাজ গুছিয়ে আনা আরও সহজ করবে আইওএস ৯-এর ‘প্রোঅ্যাক্টিভ’ ফিচার।

হোম স্ক্রিনের সার্চ ফিচারেও আপগ্রেড এনেছে অ্যাপল। সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত অ্যাপ, পছন্দের কনটাক্ট, রেস্টুরেন্ট, গুরুত্বপূর্ণ খবর ইত্যাদির উপর চোখ বুলিয়ে নেওয়া যাবে হোম স্ক্রিনের সার্চ অপশন থেকেই। যোগ হয়েছে নতুন নিউজ অ্যাপ আর আইপ্যাডের জন্য ‘স্প্লিট স্ক্রিন মাল্টিটাস্কিং’ ফিচার।

অন্যদিকে ওএস এক্স ১০.১১ এল ক্যাপিটানে থাকবে আরও উন্নত উইন্ডো ম্যানেজমেন্ট ফিচার ও স্পটলাইট সার্চ। আপডেট করা হয়েছে নোটস এবং ম্যাপস অ্যাপ।

সাফারি ব্রাউজারে যোগ হয়েছে ‘পিনড সাইট’ এবং ‘মিউট বাটন’ ফিচার। যে কোনো ট্যাবের অডিও বন্ধ করে দিতে পারবে ‘মিউট বাটন’। মেইলে যোগ হয়েছে জেশ্চার ও স্মার্ট সাজেশন ফিচার। তবে ম্যাকরিউমার্সের মতে অপারেটিং সিস্টেমটির সবচেয়ে বড় ইতিবাচক দিক হচ্ছে এর গতি। ম্যাক কম্পিউটারে যে কোনো কাজের গতি আগের যে কোন সময়ের তুলনায় বাড়াবে এল ক্যাপিটান।

নিবন্ধিত ডেভেলপারদের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে এল ক্যাপিটান ও আইওএস ৯। জুলাই মাস নাগাদ সাধারণ ব্যবহারকারীদের মধ্যে আগ্রহী বেটা টেস্টাররাও অ্যাপলের নতুন দু্ই ওএসের পরীক্ষামূলক সংস্করণ ব্যবহারের সুযোগ পাবেন। বাণিজ্যিক সংস্করণ দুটি চলতি বছরের শেষের দিকে সবার জন্য উন্মুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছে ম্যাকরিউমার্স ডটকম।

[icon name=”*”]

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button