জাতীয়

চার দেশে পণ্য ও যাত্রী পরিবহনে থিম্পুতে চুক্তি সই

ডেইলি টাইমস ২৪:

বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল ও ভুটানের মধ্যে আঞ্চলিক সড়ক যোগাযোগে রূপরেখা চুক্তি সই হয়েছে।
সোমবার ভুটানের রাজধানী থিম্পুতে এই চুক্তি সই হয়।
কিছু আনুষ্ঠানিকতা শেষে চলতি বছরের শেষদিকে মূল চুক্তি সই হলে আগামী বছর থেকে চার দেশের মধ্যে পণ্য ও যাত্রীবাহী যান চলাচল শুরু করতে পারবে।
বাংলাদেশের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ভুটান, নেপাল এবং ভারতের মন্ত্রীরাও তাদের দেশের পক্ষে চুক্তিতে সই করেন।
থিম্পুতে মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকের আগে রবিবার সচিব পর্যায়ের বৈঠকে চুক্তির খসড়া চূড়ান্ত হয়। বৈঠকে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সচিব এম এ এন ছিদ্দিক।
দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক অর্থনৈতিক সহযোগিতাবিষয়ক (সাসেক) কৌশলগত বাণিজ্য সম্প্রসারণ রূপরেখার ওপর ভিত্তি করেই এ চুক্তি সই হয়। ২০১৪ সালের মার্চে এই চার দেশ সাসেক রূপরেখা অনুমোদন করে।
জানা গেছে, শুধু স্থলবন্দর দিয়েই এই যাতায়াত হবে। ভবিষ্যতে নতুন কোনো বন্দর নির্মিত হলে সেটিও চুক্তির আওতায় আসবে। বর্তমানে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে যাত্রী ও পণ্যবাহী যানবাহন চলাচল করছে। নতুন চুক্তি হলে এক দেশ অন্য দেশের ভূমি ব্যবহার করে তৃতীয় দেশেও যেতে পারবে। অনেকটা ইউরোপীয় ইউনিয়নের আদলে চুক্তিটা করা হয়।
খসড়া রূপরেখা চুক্তি অনুসারে যানবাহনের বৈধ মালিকানা, ফিটনেস ও ইনস্যুরেন্সের হালনাগাদ দলিল থাকতে হবে। চালকের স্থানীয় কিংবা আন্তর্জাতিক যেকোনো এক ধরনের লাইসেন্স থাকলেই চলবে। আর যাত্রীর থাকতে হবে বৈধ ভ্রমণ দলিল। প্রয়োজন হলে পথে যেকোনো দেশের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষ যানবাহন পরিদর্শন করতে পারবে।
নিষিদ্ধ কিংবা তালিকাভুক্ত স্পর্শকাতর মালামাল বহন করা যাবে না। ব্যক্তিগত, যাত্রী ও পণ্যবাহী যানবাহন চলাচলের অনুমতি পাওয়ার জন্য আলাদা আলাদা ফরম পূরণ করতে হবে। বাণিজ্যিকভাবে পরিচালিত যানের দীর্ঘমেয়াদি অনুমোদন লাগবে। আর ব্যক্তিগত গাড়ির অনুমতি হবে সাময়িক এবং তা তাৎক্ষণিকভাবে অভিবাসন কর্তৃপক্ষ দিতে পারবে।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button