জেলার সংবাদ

কলারোয়ায় সোনালী ব্যাংকের ২ গার্ডকে জবাই করে হত্যা

ঢাকা, জুলাই(ডেইলি টাইমস ২৪):

বুধবার রাতে কলারোয়ার সোনালী ব্যংকের দুই গার্ডকে কুপিয়ে ও জবাই করে হত্যার পর ডাকাত দলরা ব্যাংকের ভিতরে বিভিন্ন কাগজ পত্র তছরুপসহ ব্যাংকের লকার ভাঙ্গার চেষ্ট করেছে। সকালে স্থানীয়রা থানা পুলিশকে খবর দিয়ে জেলা পুলিশের এসপি চৌধুরী মনজুরুল কবির, থানার ওসি আবু সালেহ মাসুদ করিম ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন, ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু ঘটনা স্থন পরিদর্শন করেন। সোনালী ব্যাংক ম্যানেজার মনোতোষ কুমার জানান, মঙ্গলবার তিনি ব্যাংকের সকলকে সবে কদরের ছুটি দিয়ে ব্যাংক থেকে চলে যান।

এসময় ও ব্যাংকে গার্ড হিসাবে কলারোয়া উপজেলার ঝাপাঘাট গ্রামের শেখ কায়ুম হুজুরের ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন (৩৩) ও সদর উপজেলার হরিশপুর গ্রামের আনারুল ইসলামের ছেলে আসাদ (৩২) দায়িত্বে থাকে। তারা দুজন ব্যাংকের দ্বিতীয় তলা ভবনের মধ্যে রাত যাপন করে। ব্যাংকের গেটের চাবিও তাদের কাছে থাকে। তিনি খবর পেয়ে ব্যাংকে এসে তার ব্যংকের দুই গার্ডের গলা কাটা অবস্থায় লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। তবে ব্যাংক থেকে কি পরিমানে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা তিনি বলতে পারনে না। এদি থানা পুলিশ হত্যায় স্বিকার দুই গার্ডের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার চৌধুরী মনজরুল কবির জানান, নিহতদের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত চলছে। আশা করা যায় মুল ঘটনা খুব তাড়াতাড়ী বের হয়ে আসবে। এদিকে ব্যাংকের সেকেন্ড অফিসার শহিদুল ইসলাম জানান, তিনি প্রথমে লোক মারফত খবর পেয়ে ব্যাংকে ছুটে আসেন। ব্যাংকের ভিতরে ঢকে দেখতে পান যে, তারই ব্যাংকের গার্ড জাহাঙ্গীর হোসেন ও আসাদের গলা কেটে হত্যা করা লাশ ব্যংকের ভিতরে পড়ে রয়েছে। পরে তিনি ব্যংকের ম্যানেজারকে খবর দেয়। নিহত দুই গার্ডের মধ্যে ঝাপাঘাট গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেন ৩বছর ধরে সোনালী ব্যাংকে সততার সহিত গার্ড হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছে। এদিকে সোনালী ব্যাংকে দুই গার্ড হত্যার ঘটনায় কলারোয়া উপজেলা জুড়ে আতংক বিরাজ করছে। মনে হয় যেন কারর নিরাপত্তা নেই। লাশ উদ্ধারের আগে হাজার হাজার জনতা ব্যংকটির সামনে ঘিরে থাকতে দেখা গেছে।

ঢাকা, জুলাই(ডেইলি টাইমস ২৪),বা/খ:

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button