রাজনীতি

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেলেন সৈয়দ আশরাফ

ঢাকা, ১৬জুলাই(ডেইলি টাইমস ২৪):  এক সপ্তাহ পার না হতেই দফতর পেলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। তাকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।
প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, বাংলাদেশ সরকারের রুলস অব বিজনেস, ১৯৯৬ এর রুল ৩ (৪)-এ প্রদত্ত ক্ষমতাবলে প্রধানমন্ত্রী দফতরবিহীন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দিয়েছেন। বর্তমান মেয়াদে এ মন্ত্রণালয়ে এর আগে কোনো পূর্ণ মন্ত্রী না থাকলেও ইসমাত আরা সাদেক প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

এর আগে গত ৯ জুলাই সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের (এলজিআরডি) দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে দফতরবিহীন মন্ত্রী করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। একইসাথে প্রজ্ঞাপনে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী নিযুক্ত করা হয়।

সৈয়দ আশরাফকে দফতরবিহীন মন্ত্রী করা হলে দলের ভেতরে ও বাইরে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়। তেমন কোনো অভিযোগ না থাকলেও দফতরবিহীন মন্ত্রী করায় সরকারও নানা সমলোচনার মুখে পড়ে। মন্ত্রীত্ব ফিরিয়ে দেয়ার দাবিতে নিজ জেলা কিশোরগঞ্জ আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগসহ স্থানীয় নেতাকর্মীরা মানববন্ধন করে।

দলীয় সূত্র জানায়, মন্ত্রীত্ব হারিয়ে সৈয়দ আশরাফ অভিমান করে গত বুধবার লন্ডনে যেতে চেয়েছিলেন তার পরিবারের সাথে ঈদ উদ্যাপন করতে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী নিষেধ করায় শেষমেষ তিনি লন্ডন যাত্রা স্থগিত করেন।

কিশোরগঞ্জ থেকে নির্বাচিত এমপি সৈয়দ আশরাফ ছাত্রজীবনে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৭৫ সালে ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর জেলখানায় তার পিতা সৈয়দ নজরুল ইসলামসহ জাতীয় চার নেতাকে হত্যার পর সৈয়দ আশরাফ লন্ডনে চলে যান। সেখানেও তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন।

১/১১ এর সময় দলের নাজুক পরিস্থিতিতে সাবেক সাধারণ সম্পাদক মরহুম জিল্লুর রহমানের সাথে সৈয়দ আশরাফ দলের হাল ধরেন। পরবর্তীতে তিনি দলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের আমলে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী হন।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে টানা দ্বিতীয়বারের মত আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে তাকে পুনরায় স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেয়া হয়।

এরআগে ১৯৯৬ সালে লন্ডনের প্রবাসী জীবন থেকে দেশে ফিরে এমপি নির্বাচিত হন এবং তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকারের বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

-আ/বি/আ , ডেইলি টাইমস ২৪

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button