জাতীয়

আইন মেনে বাবুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে

ঢাকা, ২৬ জুন, (ডেইলি টাইমস ২৪):

ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যাকাণ্ডে তদন্তের স্বার্থে তার স্বামী এসপি বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এখানে আইনের কোনো ব্যত্যয় হয়নি।

রোববার দুপুরে রাজধানীর ধোলাইপাড়ে ওয়ারি জোনের উপকমিশনারের উদ্যোগে ঈদ বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

এ সময় ডিএমপি কমিশনার পুলিশ দম্পতিকে নিয়ে কয়েকটি পত্রিকার বিতর্কিত সংবাদ প্রচারকে ইঙ্গিত করে বলেন, ‘মিডিয়া কেন এ ধরনের খবর প্রচার করে, তা আমার জানা নাই।’

তিনি বলেন, ‘মিডিয়ায় অনেক কিছুই প্রচার করা হয়। এর সব সত্য বা সব মিথ্যা তা নয়। মিতু হত্যাকাণ্ডে একটি মামলা হয়েছে, কয়েকজন গ্রেফতার আছে। হত্যায় ব্যবহৃত অস্ত্রটিও উদ্ধার হয়েছে। তারপরও বাবুল আক্তারকে নিয়ে মিডিয়া কেন এ ধরনের খবর প্রচার করে?’

গভীররাতে বাসা থেকে নিয়ে গিয়ে বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘স্ত্রী হত্যা মামলার বাদী বাবুল আক্তার নিজেই একজন অন্যতম প্রধান সাক্ষী। তাই তাকে বিভিন্ন বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। আর সিএমপি এটা করেছে। এখানে আইন মেনেই সব করা হয়েছে।’

শুক্রবার গভীররাতে বনশ্রী ভূঁইয়াপাড়ার শ্বশুরবাড়ি থেকে বাবুল আক্তারকে নিয়ে গিয়ে পুলিশ মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে। পরে শনিবার বিকালে তাকে শ্বশুর বাড়িতে পৌঁছে দেয়া হয়। দীর্ঘ ১৫ ঘণ্টা তার সঙ্গে পরিবার যোগাযোগ করতে না পারলে বিতর্কের সৃষ্টি হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৫ জুন নগরীর জিইসির মোড় এলাকায় ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় দুর্বৃত্তরা ছুরিকাঘাত ও গুলি করে পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে হত্যা করে।

এ ঘটনার পরদিন পাঁচলাইশ থানায় বাবুল আক্তার বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ঈদ বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- ওয়ারি উপকমিশনার সৈয়দ নুরুল ইসরাম, যাত্রাবাড়ী থানার ওসি আনিসুর রহমান, শ্যামপুর থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button