জাতীয়

বাংলাদেশকে দেয়া ব্রিটেনের সহায়তা পুনর্বিবেচনার আহ্বান

ঢাকা, ২৯ জুন, (ডেইলি টাইমস ২৪): ব্রিটিশ এমপি সায়মন ডানচাক বলেছেন, গণতন্ত্র, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা এবং সুশীল সমাজের মুক্তকন্ঠ এসব কিছুই সংকুচিত হয়ে পড়ায় বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটছে। এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে বাংলাদেশ গৃহযুদ্ধের দিকে ধাবিত হবে বলে আশংকা করেছেন ব্রিটিশ এমপি সায়মন ডানসাক। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা ওএনবি এ খবর দিয়েছে।
গত মঙ্গলবার ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বাংলাদেশ পরিস্থিতির ওপর একটি মোশন এনে তিনি এ ব্যাপারে তার দেশের হস্তক্ষেপ কামনা করে বলেন, অন্যথায় বাংলাদেশে অরাজক পরিস্থিতির প্রভাব ব্রিটেনের ওপর পড়বে। বাংলাদেশের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে শুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের ওয়েস্ট মিন্সটার হলে।
সায়মন ডানসাক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারকে অগণতান্ত্রিক আখ্যা দিয়ে বলেন, বাংলাদেশে এখন গণতন্ত্র নেই, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নেই, সাংবাদিকরা গ্রেফতার হচ্ছে, বিরোধীদলের নেতা-কর্মীদের উপর চলছে নির্মম নির্যাতন নিপীড়ন, জঙ্গি হামলায় খুন হচ্ছে বিভিন্ন ধর্ম ও বর্ণের মানুষ। এমনকি শেখ হাসিনা তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এবং বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের জনপ্রিয়তায় ভীত হয়ে তাদেরকে হয়রানিমূলক মামলার মাধ্যমে রাজনীতি থেকে সরিয়ে দেবার চেষ্টা করছেন।
ওএনবি লন্ডন থেকে জানায়, আলোচনায় অংশ নিয়ে বাংলাদেশকে গণতন্ত্রের পথে ফিরিয়ে এনে রাজনৈতিক সংকট উত্তরণে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য আবারো তাগিদ দিলেন ব্রিটেনের ফরেন এন্ড কমনওয়েল দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী হুগো সয়্যার। তিনি বলেন, এজন্য সকল রাজনৈতিক দলগুলোরও দায়িত্ব রয়েছে। এজন্য সব দলের সঙ্গে সমন্বয় করে একটি স্থিতিশীল বাংলাদেশ গড়তে বৃটেনের সহযোগিতা ও প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে। তিনি বলেন, ২০১৫ সালের জুলাই মাসে বৃটেন সরকার বাংলাদেশে গুম খুন এবং জঙ্গি কর্মকান্ড বন্ধে বাংলাদেশের প্রতি আহবান জানালেও দেখা যায় জঙ্গিবাদী কর্মকান্ড আরো বেড়েছে। বেড়েছে বিরোধী দল ও মতের মানুষের উপর নির্যাতন নিপীড়ন এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতা হরণ ও মুক্তচিন্তা প্রকাশের উপর হস্তক্ষেপ।
হুগো সয়্যার বলেন, চলতি বছরের ২৪ মে লন্ডনের নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার এবং ২৭ মে জাপান সফরকালে শেখ হাসিনার কাছে বৃটেনের উদ্বেগের কথা জানানো হয়েছে।
বাংলাদেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে বৃটিশ পার্লামেন্টের ওয়েস্ট মিনিসটার হলে দীর্ঘ আলোচনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বলা হয় বাংলাদেশে এখন আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থির চরম অবনতি ঘটেছে। আলোচনায় ব্লগার হত্যা, বিভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের আন্তর্জাতিক জঙ্গি গোষ্ঠি এবং সরকারের যুগপদ হামলা, বিচারবহির্ভূত হত্যাকান্ড এবং গুম খুনের তীব্র সমালোচনা করা হয়।
সায়মন ডানচাক এমপি বলেন গণতন্ত্র, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা এবং সুনীল সমাজের মুক্তকন্ঠ এসব কিছুই সংকুচিত হয়ে পড়ায় বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটছে। এ অবস্থা অব্যাহত থাকলে বাংলাদেশ গৃহযুদ্ধের দিকে ধাবিত হবে বলে আশংকা প্রকাশ করেন সায়মন ডানচাক। তিনি এ ব্যাপারে বৃটেনের হস্তক্ষেপ কামনা করে বলেন, অন্যথায় বাংলাদেশে অরাজক পরিস্থিতির প্রভাব বৃটেনের উপর পড়বে। সায়মন ডানচাক এমপি আরো অভিযোগ করে বলেন, জঙ্গি দমনে সরকারের অনিচ্ছার পাশাপাশি বিরোধী দলের উপর জঙ্গি হামলার দায় চাপিয়ে এটিকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহারের চেষ্টা করার বিষয়টি আরো উদ্বেগজনক। তিনি বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের নামে প্রহসনের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করে শেখ হাসিনা সকল গণতান্ত্রিক মত ও পথকে রুদ্ধ করেছেন। নির্বাচন কমিশন এমনকি বিচারবিভাগকেও দলীয়করণ করা হয়েছে।
সায়মন ডানচাক এমপি বলেন, সরকারি দমন নির্যাতন থেকে এটা স্পষ্ট যে, বাংলাদেশে আগামী নির্বাচন ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের চেয়েও অধিক প্রহসনের হবে। এই অবস্থায় তিনি বাংলাদেশকে দেয়া ব্রিটেনের সামরিক ও বাণিজ্যিক সহায়তাগুলো পর্যালোচনা করার আহবান জানিয়ে বলেন, এটি দেখার বিষয় ব্রিটেনের সার্বিক সহায়তা শেখ হাসিনার সরকার বিরোধী মতকে নিপীড়ন-নির্যাতন করার জন্য ব্যবহার করছেন কিনা।
আলোচনায় অংশ নিয়ে বৃটিশ বাংলাদেশি এমপি ডক্টর রূপা হক আগামী সেপ্টেম্বর মাসে কমনওয়েলথ সম্মেলনে বাংলাদেশে ব্লগার এবং এলজিবিইটি হত্যা এবং ভিন্নধর্মের মানুষের উপর নিপীড়ন এইসব বিষয়গুলো উত্থাপন করা হবে কিনা এ বিষয়ে মন্ত্রীর কাছে জানতে চান।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button