জেলার সংবাদ

রায়পুরে পৃথক স্থানে দুই নারীর লাশ উদ্ধার

ঢাকা, ০৮ জুলাই, (ডেইলি টাইমস ২৪):

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার পৃথক দুটি স্থান থেকে লাকী আক্তার (২৫) ও অজ্ঞাতনামা (২৮) এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার সকালে পৌর শহরের নতুন বাজার এলাকার খেজুরতলা নামকস্থান থেকে মাটি চাপা অবস্থায় লাকীর লাশ ও উপজেলার দক্ষিণ চরবংশী ইউনিয়নের চরলক্ষ্মী গ্রামের সমিতির হাট এলাকার খাল থেকে অজ্ঞাতনামা অপর নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য লাশ দুটি লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিহত লাকী উপজেলার গাইয়ারচর ইউনিয়নের মিতালী বাজার এলাকার হাবিবউল্যা নকতির মেয়ে ও পৌর শহরের দেনায়েতপুর গ্রামের সেলিমের স্ত্রী। তবে ঘটনার পর থেকে তার স্বামী পলাতক।

অপর নিহতের নাম বা পরিচয় জানা যায়নি। স্থানীয়দের ধারণা, রাতের কোনো এক সময় পাশ্ববর্তী ফরিদগঞ্জ উপজেলা থেকে ওই নারীকে হত্যা করে মরদেহ খালে ফেলে যায় দুর্বৃত্তরা।

নিহত লাকীর বড় বোন সাজু আক্তার বলেন, তার স্বামী প্রবাসে থাকায় তিনি ছোট বোন লাকীকে নিয়ে প্রায় ৮ বছর ধরে পৌর শহরের নতুন বাজার এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকেন। প্রায় ৬ মাস আগে প্রেমের মাধ্যমে গড়ে উঠা সম্পর্কের জের ধরে দেনায়েতপুর গ্রামের সমিদ মিঝির ছেলে সেলিমের সঙ্গে লাকীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্বামীর বাড়িতে না গিয়ে লাকী আমার সঙ্গে থাকতো। কিন্তু এতে কোন খচর বহন করতো না সেলিম। ঈদ উপলক্ষে কোন জামা-কাপড় কিনে না দেওয়ায় বৃহস্পতিবার ঈদের রাত ১১টার দিকে সেলিম বাসায় আসলে উভয়ের মাঝে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে লাকীকে বেদম মারধর করে বাসা থেকে বের হয়ে যায় সে। একই সময় লাকী সেলিমকে ডাকতে ডাকতে তার সঙ্গে বেরিয়ে যায়। তারপর থেকে লাকী আর বাসায় ফিরেনি। আজ (শুক্রবার) সকালে তাদের ভাড়া বাসার পাশে লাকীর লাশ মাটি চাপা অবস্থায় দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন।

রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ লোকমান হোসেন বলেন, দুই নারীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে লাকীর শরীরের বিভিন্নস্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাই প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, এটি একটি হত্যা। অন্য লাশটির শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন ও কোন পরিচয় বা তথ্য পাওয়া যায়নি। দুটি ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button