জাতীয়

আবির ‘চার মাস নিখোঁজ’, জিডি ঈদের আগের দিন

ঢাকা, ০৯ জুলাই, (ডেইলি টাইমস ২৪):

কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় সর্ব বৃহৎ ঈদ জামাতের কাছে জঙ্গি হামলায় নিহত সন্দেহভাজন হামলাকারী আবির রহমান চার মাস ধরে নিখোঁজ ছিলেন বলে পরিবার জানিয়েছে।  তবে তা নিখোঁজের সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয় ঈদের আগের দিন। পরিবারের পক্ষ থেকে রাজধানীর ভাটারা থানায় এই জিডি করা হয়।

ভাটারা থানার ওসি নুরুল মোত্তাকিন সংবাদমাধ্যমকে শুক্রবার রাতে বলেন, গত ৬ জুলাই আবীরের বাবা সিরাজুল ইসলাম ছেলে নিখোঁজের বিষয়ে থানায় জিডি করেন। গত ১ মার্চ থেকে আরির নিখোঁজ বলে জানান তিনি।

এতদিন পরে জিডি করার কারণ জিজ্ঞেস করেছিলেন বলে জানান ওসি। ‘জবাবে সিরাজুল ইসলাম বলেন, বিদেশে যাওয়া নিয়ে রাগ করে ছেলে বাসা থেকে বেরিয়েছিল। ও মালয়েশিয়ায় যেতে চেয়েছিল, আমি বলেছিলাম দুই ভাই অস্ট্রেলিয়ায় থাকে সেখানে যাও। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির পর বাসা থেকে বেরিয়ে যায়।

তিনি বলেন, ‘ভেবেছিলাম, মালয়েশিয়ায় গেছে নিজেই ফিরে আসবে। কিন্তু গুলশানে হামলার পর মনে সন্দেহ হওয়ায় থানায় এসেছি।’

শোলাকিয়ায় সর্ব বৃহৎ ঈদ জামাতের কাছে বোমা হামলার ঘটনায় নিহত জঙ্গি আবির রহমান নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন।

শুক্রবার বিকেলে কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন খান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এসপি আনোয়ার হোসেন জানান, আবির হোসেনের বাবার নাম সিরাজুল ইসলাম। তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলায়। ঢাকায় তাদের বসুন্ধরায় বাড়ি রয়েছে।

আনোয়ার হোসেন খান আরও জানান, পুলিশের সন্ত্রাসীদের তালিকায় তার নাম রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে সে নিখোঁজ ছিল।

তিনি জানান, ঢাকা থেকে আবির নিখোঁজ হয়েছিলেন। তার নিখোঁজের বিষয়ে ডিএমপি’র যেকোনো একটি থানায় সাধারণ ডায়েরিও করা হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টার দিকে কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহসংলগ্ন আজিমুদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে হাতবোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় জহিরুল ইসলাম (৩২) ও আনছারুল ইসলাম নামে দুই পুলিশ সদস্য, এক হামলাকারী ও  ঝর্ণা রাণী ভৌমিক (৩৪) নামের এক নারীসহ চারজন নিহত হয়।

ঘটনাস্থল থেকে এক আহতসহ ২ হামলাকারীকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশের আরও ৬ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন। আহত পুলিশ সদস্যদের প্রথমে কিশোরগঞ্জ পরে ময়মনসিংহ সিএমএইচ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে তাদের অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় স্থানান্তরের ব্যবস্থা করা হয়।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button