আইন ও আদালত

মানবতাবিরোধী অপরাধ : জামালপুরের ৮ জনের রায় সোমবার

ঢাকা, ১৭ জুলাই, (ডেইলি টাইমস ২৪):

একাত্তরে সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় জামালপুরের অ্যাডভোকেট শামসুল আলম এবং এসএম ইউসুফ আলীসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে আগামীকাল সোমবার রায় ঘোষণা করা হবে। রোববার ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল এ দিন ধার্য করে আদেশ দিয়েছেন।

মামলার ৮ আসামির মধ্যে অ্যাডভোকেট শামসুল হক এবং এসএম ইউসুফ আলী কারাগারে আছেন। বাকি পলাতক আসামিরা হলেন- মো. আশরাফ হোসেন, অধ্যাপক শরীফ আহমেদ ওরফে শরীফ হোসেন, মো. আব্দুল হান্নান, মো. আব্দুল বারী, মো. হারুন ও মো. আবুল কাসেম।

গত ১৯ জুন রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক পেশ করার পর মামলাটির রায় যেকোনো দিন ঘোষণা করা হবে মর্মে অপেক্ষামাণ রাখেন ট্রাইব্যুনাল।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করেন প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ এবং তাকে সহয়তা করেন প্রসিকিউটর প্রসিকিউটর হৃষিকেশ সাহা, জেয়াদ আল মালুম, সুলতান মাহমুদ সিমন, জাহিদ ইমাম, তাপস কান্তি বল ও  রেজিয়া সুলতান চমন। অন্যদিকে, আসামিপক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করেন আইনজীবী আব্দুস সোবহান তরফদার, আইনজীবী সৈয়দ মিজানুর রহমান ও অ্যাডভোকেট গাজী মো. তমিম।

এর আগে গত বছরের ২৬ অক্টোবর ৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন ট্রাইব্যুনাল। গত ২৫ মার্চ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশনের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন। তারপর ২০১৫ সালের ২৬ অক্টোবর অভিযোগ গঠন করেন ট্রাইব্যুনাল। ওই বছরের ২৯ এপ্রিল তাদের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আমলে নেন ট্রাইব্যুনাল।

এদিকে, গত ২২ জুলাই পলাতক জামালপুরের ৬ রাজাকারকে হাজির হতে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের নির্দেশ দিয়েছিলেন ট্রাইব্যুনাল।

আসামিদের বিরুদ্ধে আনা ৯২ পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদনে ৮ জনের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধকালীন হত্যা, গণহত্যা, আটক, অপহরণ, নির্যাতন ও গুমের সুনির্দিষ্ট মানবতাবিরোধী অপরাধ সংগঠনের পাঁচটি অভিযাগ আনা হয়েছে। মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে ১৯৬ পৃষ্ঠার দালিলিক প্রমাণ এবং ৪০ জন সাক্ষী রয়েছে। এছাড়া অভিযুক্তদের অপরাধ সংঘটনের সময়কাল ১৯৭১ সালের ২২ এপ্রিল থেকে ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ধরা হয়েছে।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button