খেলাধুলা

ওল্ড ট্রাফোর্ডেও কি পাকিস্তান আধিপত্য?

ঢাকা, ২১ জুলাই, (ডেইলি টাইমস ২৪):

ইংল্যান্ডের মাটিতে ইংল্যান্ডকে হারানো সবসময়ই কঠিন। এই কঠিন কাজটা মিসবাহ-উল-হকরা লর্ডসে চারদিনেই করে ফেলেছে। প্রশংসা বন্দনায় ভাসছে মিসবাহর দল। ক্ষুব্ধ ইংলিশ গণমাধ্যম তো নির্বাচকরদেরই বহিস্কারের দাবি তুলেছে। এরকম অবস্থায় শুক্রবার থেকে ম্যানচেষ্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে শুরু হতে যাচ্ছে দ্বিতীয় টেস্ট। বাংলাদেশ সময় ম্যাচটি শুরু হবে বিকেল চারটায়।

কাঁধের চোট কাটিয়ে দ্বিতীয় টেস্টে ফিরছেন ইংলিশ পেস আক্রমণের নেতা জেমস অ্যান্ডারসন। যিনি এরইমাঝে ইংল্যান্ডের ক্রিকেট ইতিহাসেই সর্বকালের সেরা বোলারের তালিকায় ঢুকে পড়েছেন। লর্ডসে অ্যালিস্টার কুক তার অভাবটা ভালোভাবেই টের পেয়েছেন। দলে ফিরতে পারেন অলরাউন্ডার বেন স্টোকস। এই দুজনকে জায়গা দিতে বাদ পড়তে পারেন জেমস ভিন্স বা গ্যারি ব্যালান্সের যে কেউ।

ইংল্যান্ডের যখন ঘরের মাঠে ত্রাহি অবস্থা তখন পাকিস্তান আকাশে উড়ছে! নতুন কোচ মিকি আর্থার ও নতুন প্রধান নির্বাচক ইনজামাম-উল-হকের যাত্রা দারুণভাবে শুরু হয়েছে। মিসবাহ ৪২ বছর বয়সে প্রমাণ করে দেখালেন ক্রিকেট খেলার জন্য বয়স স্রেফ একটা সংখ্যা। ক্রিকেটের তীর্থভূমিতে তার অভিনব উদযাপন সবাই বেশ উপভোগ করেছেন। ধারাবাহিকতা ধরে রেখে পাকিস্তানের টেস্ট দলে অপরিহার্য হয়ে উঠছেন আসাদ শফিক। বর্ষিয়ান ইউনিস খান লর্ডসে বড় ইনিংস খেলতে পারেননি। কিন্তু সেটা হতে কতক্ষণ?

ইয়াসির শাহকে নিয়ে কেন স্পিন কিংবদন্তি শেন ওয়ার্ন বারবার তার মুগ্ধতার কথা বলেছেন পাকিস্তান স্পিনার তার কারণ লর্ডসে ভালোমতেই ব্যাখ্যা করেছেন। প্রথম ইনিংসে ৬ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন ইয়াসিরই। যাকে অনেক বেশি কথা হয়েছে সেই মোহাম্মদ আমির হয়তো উইকেট সেভাবে পাননি তারপরও ওই সময়ের মধ্যেই নিজের সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছেন। যে বলে তিনি স্টুয়ার্ট ব্রডকে বোল্ড করেছিলেন, সেই ডেলিভেরির প্রশংসা ঝরেছে পাকিস্তানের কিংবদন্তি অধিনায়ক ওয়াসিম আকরামের মুখে। যার সঙ্গে প্রতিনিয়তই তুলনা করা হয় আমিরের।

তবে পাকিস্তানের পেস আক্রমণ যে আমির নির্ভর নয় সেটা প্রমাণ করেছেন রাহাত আলি। দ্বিতীয় ইনিংসে প্রথম সারির তিন ব্যাটসম্যানকে তিনিই ফিরিয়েছেন। পরে বাকি কাজটুকু সেরেছেন ইয়াসির। ৭৫ রানের জয়ের টাটকা স্মৃতি নিয়ে ওল্ড ট্রাফোর্ডে ইংলিশদের ওপর ঝাঁপাবে মিসবাহর দল। পক্ষান্তরে সর্বশক্তি নিয়োগ করে ইংলিশরা চাইবে টেস্ট সিরিজে ফিরে আসতে। একথা বলাই যায় যে, পাকিস্তান যদি তাদের ধারাবাহিকতা ধরে রাখে তাহলে তাদের পর্যদস্তু করা কঠিনই বৈকি। কিন্তু পাকিস্তান ক্রিকেটের বেলায় একটা কথার বেশ চল আছে ‘আনপ্রেডিক্টেবল’! আর্থার-ইনজিরা কি পারবেন পাকিস্তানকে এই ‘আনপ্রেডিক্টেবল’তকমা থেকে বের করে নিয়ে আসতে? সেটা হলে ওল্ড ট্রাফোর্ডেও পাকিস্তানের আধিপত্য দেখার সম্ভাবনাই বেশি!

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button