খেলাধুলা

বাংলাদেশকে আরো একধাপ এগিয়ে দিতে চান তামিম

ঢাকা, ২৭ জুলাই, (ডেইলি টাইমস ২৪):

টেস্ট ক্রিকেটে আবির্ভাবের পর গত বছরই দারুণ ধারাবাহিক সফলতা পেয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সে ধারায় র্যাংকিংয়েও উন্নতি হয় টাইগারদের। বর্তমান সময়ে ক্রিকেট বিশ্বে এখন সব দলই সমীহের দৃষ্টিতে দেখে বাংলাদেশকে। তবে এ অবস্থানে নয়, বাংলাদেশকে আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে যেতে চান বাংলাদেশ দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল। তা করতে পারলেই নিজেদের সফল মনে করবেন তামিম-মুশফিক-মাশরাফিরা।

বুধবার মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সাবেক ক্রিকেটারদের সঙ্গে ফুটবল খেলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের বর্তমান ফুটবলাররা। এর আগে বিসিবি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তামিম বলেন, ‘আমি যতটুকু জানি পরের চার-পাঁচ বছরে প্রচুর ম্যাচ আছে বাংলাদেশের। ওই ম্যাচগুলো যদি ভালো করতে পারি হোম এবং অ্যাওয়েতে দুটোতেই। তাহলে আমরা যে ধাপে আছি, তার চেয়ে আরও একধাপ এগিয়ে যেতে পারবো। আমরা যারা সিনিয়র খেলোয়াড় আছি, যারা ছয় সাত বছর আরও খেলবো তারা দায়িত্ব নিয়ে যদি আরও একটা ধাপ উপরে নিয়ে যেতে পারি দেশকে, তাহলেই আমরা নিজেদের সফল মনে করবো।’

গত আগস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্ট খেলেছিল বাংলাদেশ। এরপর প্রায় এক বছর ধরে কোন টেস্ট ম্যাচ খেলেনি বাংলাদেশ। আগামী অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে প্রায় ১৪ মাসের গ্যাপে পড়বে টাইগাররা। তাই স্বাভাবিকভাবেই টেস্ট ক্রিকেটে মানিয়ে নেওয়া কঠিন হবে বলে মনে করেন তামিম ইকবাল।

‘দেড় বছর, দুই বছর পর যে কোন খেলাতেই মানিয়ে নিতে সমস্যা হবে। প্রায় দেড় বছর হয়েছে আমরা শেষ ম্যাচ খেলেছি। অবশ্যই অনেক কঠিন হবে। তবে আমাদের বিসিএলের একটা টুর্নামেন্ট হবে সেপ্টেম্বরে। ওখানে কয়েকটা ম্যাচ খেললে এখনকার চেয়ে ভালো অবস্থানে থাকতে পারবো আমরা।’

দারুণ একটা বছর কাটানোর পরের বছর আর কোন খেলা না থাকাটাকে নেতিবাচক হিসাবেই দেখছেন তামিম। শুধু ক্রিকেট নয়, বাস্তব জীবনেও যে কোন কিছুতে ছন্দে থাকা অবস্থায় দীর্ঘ বিরতি নেতিবাচক হয়ে ওঠে বলে জানালেন তিনি। সুতরাং, নতুন করে ছন্দ খুঁজে পাওয়াও বেশ কঠিন হবে বলে মনে করছেন বাংলাদেশ দলের এ ওপেনার।

‘ক্রিকেট বলেন বা অন্য যে কোন কাজ, একটা মানুষ যখন ছন্দে থাকে, তখন আমরা সবকিছু বুঝতে পারি, এভাবে করলে এটা হবে, ওভাবে করলে ওটা হবে; কিন্তু ওই ছন্দটা যখন ভেঙ্গে যায় তখন তা ধরা একটু কঠিন।’

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button