জাতীয়

সবুজপ্রেমীরা ছুটছেন বৃক্ষ মেলায়

ঢাকা, ১ আগস্ট, (ডেইলি টাইমস ২৪):

সারি সারি ইট-পাথর আর কংক্রিটের সুউচ্চ অট্টালিকা থেকে কিছুটা সময় খুঁজে নিতে মিরপুর থেকে বৃক্ষ মেলায় এসেছেন শারমিন জামান। যান্ত্রিক নগরের সব কোলাহল ভুলে শুধু প্রাকৃতিক এ পরিবেশের সঙ্গে কিছুটা সময় মিশবেন বলে মেলায় এসেছেন তিনি।

সরেজমিনে দেখা যায়, মেলার প্রধান গেট দিয়ে ঢুকলেই মনে হয় প্রকৃতির এক অন্য জগৎ। চারদিকে সবুজের সমাহার। সবুজের আড়ালেই দর্শনার্থীদের চোখ কেড়ে নিচ্ছে নানা ধরনের ফল ও ফুল। ছোট ছোট গাছে বড় ফল দেখলেই দর্শনার্থীরা ছুটে যাচ্ছেন সেদিকে। অনেকেই আবার দরদাম জিজ্ঞেস করে কিনে নিচ্ছেন পছন্দের গাছ।

জানা গেছে, এবারের বৃক্ষ মেলায় সরকারি, বেসরকারি, ব্যক্তিমালিকানা এবং অন্যান্য দ্রব্যাদির মোট ৭৫টি নার্সারি ও স্টল রয়েছে। যার মধ্যে সরকারি নার্সারি ৮টি, বেসরকারি ও এনজিও নার্সারি ১০টি, ব্যক্তিমালিকানাধীন নার্সারি ৫৭টি। জানতে চাইলে মেলা তথ্য কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, প্রতি বছর নার্সারি মালিকরা মেলার প্রস্তুতি নিয়ে থাকেন। এজন্য তাদের পণ্যে বা বৃক্ষে প্রচুর বৈচিত্র্য থাকে। এজন্য একক কোনো নার্সারিতে এমন হরেক রকমের গাছের সমারোহ পাওয়া সম্ভব নয়। তাই বৃক্ষপ্রেমীদের কাছে মেলা খুবই আকর্ষণীয়।

সংশ্লিষ্ট তথ্য কেন্দ্র থেকে জানা গেছে, সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর, ন্যাশনাল হারবেরিয়াম, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর, কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন ও বাংলাদেশ বন গবেষণা ইনস্টিটিউট।

অপরদিকে বেসরকারি ও ব্যক্তিমালিকানা নার্সারির মধ্যে রয়েছে আনন্দ, দ্বীপ গার্ডেন, বরিশাল, রাশিদা, গ্রিনল্যান্ড, উত্তরা ভাই ভাই ও পুষ্পিতা।

নানা বয়সী বৃক্ষপ্রেমীর আনাগোনায় প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছে মেলা প্রাঙ্গণ। পছন্দের গাছ কিনতে ছুটে আসছেন বৃক্ষ মেলায়। বিভিন্ন প্রজাতির ফলদ, বনজ, ঔষধি ও সৌন্দর্যবর্ধক গাছের মধ্যে ফলদ বৃক্ষের চাহিদা সবচেয়ে বেশি। আর ফলদ বৃক্ষের মধ্যে ক্রেতাদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে নানা জাতের আম, পেয়ারা, সফেদা, লেবু, কড়মচা, আমড়া, জলপাই, আমলকি ইত্যাদি। মেলায় প্রতিটি আম্রপালীর চারা বিক্রি হচ্ছে ৯০ টাকায়, হাঁড়িভাঙ্গা ১৫০ টাকা, থাই কাঁচামিঠা ১৫০ টাকা, গোপালভোগ ১০০ টাকা। তবে ফলসহ আমগাছের দাম সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা। পেয়ারার মধ্যে রয়েছে মাধুরী পেয়ারার চারা ১৬০ টাকা, থাই পেয়ারা ১৫০ টাকা। তাছাড়া কাজী পেয়ারা সৈয়দা পেয়ারার সংস্করণে উৎপাদিত বীজহীন পেয়ারা চারা বিক্রি হচ্ছে ৩০০ টাকায়।

চোখে পড়বে রং-বেরঙের নানা জাতের, নানা আকৃতির অদ্ভূত সুন্দর সব ফুল ও ফুলের গাছের। রঙিন ক্যাকটাস, বনসাই, ডালিয়া থেকে শুরু করে পাতাবাহার জাতীয় গাছ এই মেলায়। একমাত্র মেলাতেই পাওয়া যায় ঔষধি গাছ গাছালির বিশাল সংগ্রহ। মেলায় ফল-ফুলের গাছের পাশাপাশি পাওয়া যাবে নানা ধরনের টব ও শো-পিস। কাঠ, প্লাস্টিক ও বাঁশের নানা সাইজের ও ডিজাইনের টব।বাদ যাচ্ছেনা নানা সবজির গাছ ও চারা। বাগানের জন্য প্রয়োজনীয় মাটি থেকে শুরু করে সার, বীজ, কীটনাশক, স্প্রে, বীজ সবই মিলছে হাতের মুঠোয়, সহজেই।

দেশি গাছের চেয়ে বিদেশি গাছের দাম চড়া। ইতালিয়ান অলিট ৬০ হাজার টাকা, মহাচুনন ৭০ হাজার টাকা, পার্সিমন ৫০ হাজার টাকা, রামভুটল ৫০ হাজার টাকা ইত্যাদি।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button