আন্তর্জাতিক

পাকিস্তানী ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় কলকাতা

ঢাকা, ০৪ অক্টোবর, (ডেইলি টাইমস ২৪):

পাকিস্তানের পরমাণু অস্ত্রবাহী ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় রয়েছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশের রাজধানী কলকাতা। এ রাজ্যটি বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী।

সম্প্রতি কাশ্মীরকে কেন্দ্র করে তীব্র বিরোধে জড়িয়ে পড়ে উপমহাদেশের পারমাণবিক শক্তিধর দু’দেশ ভারত-পাকিস্তান।

চলমান উত্তেজনার মধ্যেই পাকিস্তানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী খাজা মোহাম্মদ আসিফ হুমকি দিয়েছেন, আক্রান্ত হলে ভারতে পরমাণু বোমা নিক্ষেপ করবে পাকিস্তান।

এরপরই সাধারণ ভারতবাসীদের মধ্যে জল্পনা শুরু হয় পাকিস্তান পরমাণু ক্ষেপনাস্ত্র নিক্ষেপ করলে ভারতের কোন কোন শহর আক্রান্ত হতে পারে?

পরিসংখ্যান বলছে, পাকিস্তানের হাতে বেশ কিছু ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে, যার আওতায় রয়েছ নয়াদিল্লি-কলকাতাসহ ভারতের প্রধান শহরগুলো।

পরমাণু বোমা নিক্ষেপের জন্য পাকিস্তানের হাতে থাকা ক্ষেপণাস্ত্রগুলো হলো ‘নাসর’ ‘হাতফ’ ‘গজনভি’ ‘আবদালি’। এই ক্ষেপণাস্ত্রগুলির রেঞ্জ ৬০ থেকে ৩২০ কিলোমিটার।

এছাড়াও পাকিস্তানের হাতে রয়েছে ‘ঘুরি’এবং ‘শাহিন’ ক্ষেপণাস্ত্র। ক্ষেপণাস্ত্র দুটির রেঞ্জ ৯০০-২৭০০ কিলোমিটার।

এসব ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে দিল্লি, কলকাতা, মুম্বাই, জয়পুর, আমদাবাদ, পুণে, নাগপুর, ভুপাল এবং লখনৌর মতো শহরে পরমাণু হামলা চালাতে পারবে পাকিস্তান।

এদিকে ভারতের আছে পরমাণু অস্ত্রবাহী ক্ষেপণাস্ত্র ‘পৃথ্বী’এবং ‘অগ্নি’। এর মধ্যে পৃথ্বীর রেঞ্জ ১৫০ থেকে ৬০০ কিলোমিটার এবং অগ্নির রেঞ্জ ৭০০ কিলোমিটার।

ফলে পাকিস্তানের ইসলামাবাদ, রাওয়ালপিণ্ডি, করাচি, লাহৌর, নওশেরাসহ বড় সব শহরই ভারতের পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় রয়েছে।

বর্তমানে ভারতের কাছে ১১০-১২০টি এবং পাকিস্তানের কাছে ১২০-১৩০টি পরমাণু বোমা রয়েছে।

মার্কিন সংস্থা ‘ইন্টারন্যাশনাল ফিজিশিয়ান্স ফর দ্য প্রিভেনেশন অফ নিউক্লিয়ার ওয়ার’ এর রিপোর্ট অনুযায়ী ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে যুদ্ধ হলে অন্তত ২ কোটি মানুষের মৃত্যুর আশংকা রয়েছে।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button