জাতীয়

নার্গিসের অবস্থা অপরিবর্তিত, ৭২ ঘণ্টা শেষের অপেক্ষা

ঢাকা, ০৫ অক্টোবর, (ডেইলি টাইমস ২৪):

বখাটের হামলার শিকার খাদিজা আক্তার নার্গিসের শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত রয়েছে। স্কয়ার হাসপাতালের ডিপার্টমেন্ট অব মেডিসিন অ্যান্ড ক্রিটিক্যাল কেয়ারের অ্যাসোসিয়েট মেডিকেল ডিরেক্টর মির্জা নাজিমউদ্দিন বলেন, নার্গিসের অবস্থা অাগের মতোই রয়েছে। ৭২ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে এখনো ৪৮ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণ বাকি। এরপরই বলা যাবে। তাকে যে অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছে বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ৫ শতাংশ।

বুধবার (০৫ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের নিউরো আইসিইউ এইচডিইউ’র সামনে স্বজনদের অপেক্ষা করতে দেখা যায়। নার্গিসের চাচা আব্দুল কুদ্দুস, মামা মোদাচ্ছের, এক সময়কার গৃহশিক্ষক করম অালী, দূরসম্পর্কের মামা হাবিব অপেক্ষা করছিলেন।

আব্দুল কুদ্দুস বাংলানিউজকে বলেন, ঘটনার দিন অামি নার্গিসকে পরীক্ষার হলে দিয়ে এসেছিলাম। হলে যাওয়ার অাগে মোবাইল ফোনও রেখে যেতে হয়। একবার যদি খবর পেতাম তাহলে হয়তো এরকম হতো না। এতো মানুষের সামনে ঘটলো, কেউ সাহস করে এগিয়ে যেতো পারলো না! কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।

মামা মোবাশ্বের বলেন, সে (নার্গিস) খুব শান্ত স্বভাবের। বড় হওয়ার পর মামার সঙ্গেও কথা কম বলতো।

তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ার সময় গৃহশিক্ষক হিসেবে পড়িয়েছিলেন সিলেট মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক করম অালী। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, সে ছোটবেলা থেকেই শান্ত স্বভাবের। বখাটের অাক্রমণে তার ওপর এ বর্বর হামলার বিচার দাবি করেন তিনি।

রাত অাটটার দিকে অাইসিইউ’তে নার্গিসকে দেখতে যান স্বজনেরা। বের হয়ে অাব্দুল কুদ্দুস বলেন, অবস্থা অাগের মতোই। অনেক মানুষের দেখতে আসা এবং ছবি তোলায় কিছুটা বিরক্ত চিকিৎসক এবং স্বজনেরাও।

তিনি বলেন, অনেকেই আসছেন ওকে দেখতে, সরাসরি অাইসিউতে যাচ্ছেন। যে দেখতে আসছেন, ছবি তুলছেন। চিকিৎসকরা এটা বন্ধ করতে বলেছেন।

সন্ধ্যায় খাদিজাকে দেখতে আসেন কলামিস্ট সৈয়দ অাবুল মকসুদ, জাতীয় মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক রাখি দাশ গুপ্ত প্রমুখ।

গত সোমবার (০৩ অক্টোবর) পরীক্ষা দিতে সিলেটের এমসি কলেজে যান সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক (পাস) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিস। পরীক্ষা শেষে ফেরার সময় এমসি কলেজের পুকুরপাড়ে তাকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক বদরুল আলম (২৬)।

রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে স্থানীয়রা দ্রুত সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে মঙ্গলবার (০৪ অক্টোবর) সকালে তাকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

গণপিটুনির শিকার হয়ে বদরুল পুলিশি পাহারায় সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বদরুলের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন খাদিজার চাচা অাব্দুল কুদ্দুস।

রাখি দাশ বাংলানিউজকে বলেন, এ ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার (০৬ অক্টোবর) সিলেট শহীদ মিনারে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে নার্গিসকে হত্যাচেষ্টাকারী বদরুল আলম আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button