স্বাস্থ্য

টেনিস এলবোর অকুপেশনাল থেরাপি চিকিৎসা

ঢাকা, ০৬ অক্টোবর, (ডেইলি টাইমস ২৪):

টেনিস এলবো অথবা লেটারাল এপিকনডাইলাইটিস একটি ব্যথাজনিত দশা। যা দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্ন কাজে কনুইয়ের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহারের ফলে ঘটে থাকে। সাধারণত টেনিস খেলা কিংবা টেনিসের মত অন্যান্য খেলাধুলায় কনুইয়ের উপর চাপ পড়লে এ দশার সৃষ্টি হয়।

মূলত টেনিস এলবো বলতে কয়েকটি টেন্ডনের প্রদাহ সৃষ্টির দশাকে বুঝায়। এতে টেন্ডনগুলো হাতের বিশেষ করে কনুইয়ের বাইরের মাংসপেশীকে সংযুক্ত করে। কনুইয়ের অতিরিক্ত নড়াচড়া বা চাপের কারণে হাতের টেন্ডন এবং মাংসপেশীগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ফলে বারবার কনুই জয়েন্টে নড়াচড়ার কারণে আক্রান্ত ব্যক্তি তীব্র ব্যথা অনুভব করে। এ ব্যথাটা কনুইয়ের বাইরের দিকেও অনুভূত হয়।

টেনিস এলবোর কারণ

১. অত্যধিক ব্যবহার
সাম্প্রতিক গবেষণাগুলোতে দেখা গেছে, বিশেষভাবে বাহুর নিচের অংশের মাংসপেশীগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হবার কারণে টেনিস এলবোর সৃষ্টি হয়। কনুই সোজা থাকা অবস্থায় একটি মাংসপেশী এক্সটেনসর কারপি রেডিয়ালিস ব্রেভিস কব্জির জয়েন্টকে স্থিতিশীল রাখতে সহায়তা করে। বিভিন্ন কাজ সম্পাদনের সময় কিংবা নড়াচড়া করার সময় ওই  মাংসপেশী দুর্বল হয়ে পড়ে। এতে সঙ্গে সঙ্গে টেন্ডনটিতে  ক্ষুদ্রভাবে ফাটল সৃষ্টি হয়।

টেন্ডনটি লেটারাল এপিকনডাইলের সঙ্গে জড়িত বলে সেখানে প্রদাহ ও ব্যথা অনুভূত হয়। এক্সটেনসর কারপি রেডিয়ালিস ব্রেভিস মাংসপেশীর অবস্থান ঠিক না থাকলে এটা টেনিস এলবো সৃষ্টির জন্য ঝুঁকি সৃষ্টি করে। যখন কনুই ভাঁজ বা সোজা করা হয় তখন মাংসপেশী আচমকা সেখানকার অস্থিকে টান দেয়। মাংসপেশীর এই অত্যধিক টানে ক্রমাগত সেই ফাটলটি বড় হতে থাকে। এতে ব্যথা ও প্রদাহও বাড়তে থাকে।

২. বিভিন্ন কাজ
শুধু খেলোয়াড় কিংবা অ্যাথলেটরাই টেনিস এলবোতে আক্রান্ত হন না। এতে আক্রান্তদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা বিভিন্ন কাজের সঙ্গে  জড়িত। যে কাজগুলো সম্পাদনের সময় বার বার প্রচণ্ডভাবে বাহুর নিচের অংশের মাংসপেশী  কাজ করে। রঙ মিস্ত্রি, সীসক কর্মকার, ছুতার প্রভৃতি পেশাজীবীর লোক টেনিস এলবোতে আক্রান্ত হতে পারেন।

গবেষণায় দেখা গেছে, অন্যান্য পেশাজীবীদের মধ্যে স্বয়ংক্রিয় শ্রমিক, রাঁধুনি এমনকি কসাইরাও টেনিস এলবোতে আক্রান্ত হতে পারেন।

আক্রান্ত ব্যক্তির বয়স

সাধারণত ৩০ থেকে ৫০ বছর বয়স্ক ব্যক্তিরা টেনিস এলবোতে আক্রান্ত হয়ে থাকেন।

টেনিস এলবোর লক্ষণসমূহ

টেনিস এলবোতে আক্রান্ত ব্যক্তির মধ্যে এর লক্ষণ ক্রমাগত বাড়তে থাকে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ব্যথা হালকাভাবে শুরু হয় এবং ধীরে ধীরে মাসের পর মাস তা বাড়তে থাকে। সাধারণত টেনিস এলবোর ক্ষেত্রে যে লক্ষণগুলো দেখা যায়-

ক. কনুইয়ের বাইরের অংশে ব্যথা ও জ্বালা-পোড়া করা
খ. কোন কিছু ধরতে গেলে শারীরিক দূর্বলতা অনুভূত হওয়া

তবে ব্যবহারকারীর হাতই এতে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়, এমনকি দুই হাতই আক্রান্ত হতে পারে।

অকুপেশনাল থেরাপি চিকিৎসা
অকুপেশনাল থেরাপির একটি বিশেষায়িত ব্যবস্থা হচ্ছে হ্যান্ড থেরাপি। হাতের সমস্যায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের এ সেবা দেওয়া হয়। টেনিস এলবোতে আক্রান্ত রোগীদের জন্য অকুপেশনাল থেরাপিস্টরা যেভাবে হ্যান্ড থেরাপি দেন-

ব্যথানাশক ব্যবস্থা
এর মূল লক্ষ্য দ্রুত ব্যথা কমানো। প্রাথমিকভাবে ব্যথা লক্ষ্য করার পর আক্রান্ত স্থানে একটি পাতলা রুমাল দিয়ে বরফ কিংবা কোল্ড প্যাক ১০-১৫ মিনিট করে দিনে কয়েকবার দিতে হবে। ব্যথা কমা পর্যন্ত বরফ ব্যবহার করতে হবে। তবে ব্যথা দীর্ঘদিন ধরে থাকলে সেক্ষেত্রে হট প্যাক কিংবা গরম ছ্যাক দেওয়া যেতে পারে।

বিশ্রাম
সুস্থতা নিশ্চিতের প্রধান ধাপ হলো হাতকে পর্যাপ্ত পরিমাণে বিশ্রামে রাখা। এজন্য খেলাধুলা বা বড় কাজ থেকে কয়েক সপ্তাহের জন্য পুরোপুরি বিশ্রামে থাকতে হবে।
.
ম্যাসাজ
আক্রান্ত স্থানে প্রদাহ থাকলে সেখানে ম্যাসাজের মাধ্যমে প্রদাহ কমানো হয়।

কাজ
টেন্ডনকে উত্তেজিত করতে পারে এমন কাজ বন্ধ রাখা অথবা পরিবর্তন করা। তাৎক্ষণিক নড়াচড়ার জন্য কিছু কৌশল অবলম্বন করা যেতে পারে। এছাড়া হাতের মাংসপেশীর  উপর চাপ কমাতে বিভিন্ন ইকুইপমেনট ব্যবহার করতে হবে। ব্যথা কমার পর রোগীকে অর্থবহ, উদ্দেশ্যমূলক বিভিন্ন কাজে নিয়োজিত এবং ধীরে ধীরে প্রাত্যহিক কাজে ধাপে ধাপে নিয়োজিত করার মাধ্যমে স্বাবলম্বী করে ত‍ুলতে হবে।

থেরাপিউটিক এক্সারসাইজ
রোগীর কার্যক্ষমতা বাড়াতে স্ট্রেচিং, থেরাপিউটিক এক্সারসাইজ ইত্যাদি বিভিন্ন চিকিৎসা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়।

স্প্লিন্ট ব্যবহার
টেনিস এলবো চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনে কব্জি ও কনুইয়ে স্প্লিন্ট ব্যবহার করা যেতে পারে। স্প্লিন্ট অস্থি, জয়েন্ট এবং টেন্ডনের সমস্যার জন্য মাঝে-মধ্যেই উপকারী। একজন অকুপেশনাল থেরাপিস্ট রোগীর অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে বিশেষ স্প্লিন্টের জন্য মাপ নিয়ে এই স্প্লিন্ট তৈরি করেন।

ব্রেস ব্যবহার
টেনিস এলবোর লক্ষণ দূর করতে হাতের পিছন দিকে কেন্দ্রস্থলে ব্রেস ব্যবহার করা হয় যাতে করে হাতের মাংসপেশী ও টেন্ডনগুলো স্থিতিশীল থাকে এবং সমস্যা না বৃদ্ধি পায়।

টেনিস এলবো এমন একটি রোগ, যাতে তৎক্ষণাৎ ব্যবস্থা না নিলে এটি বৃদ্ধি পেতে থাকে।  তাই এ রোগে আক্রান্ত হলে  যত তাড়াতাড়ি সম্ভব চিকিৎসকের পরামর্শ পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে হবে।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button