আন্তর্জাতিক

কাশ্মিরে সেই সরকারি ভবন এখনও জঙ্গিদের দখলে

ঢাকা, ১১ অক্টোবর, (ডেইলি টাইমস ২৪):

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে গত ফেব্রুয়ারি মাসে জঙ্গি হামলার শিকার হওয়া এক সরকারি ভবন পুনরায় দখল নেওয়ার একদিন পেরিয়ে গেলেও এখনও ভবনটির ভেতরে অবস্থান করছে জঙ্গিরা। সেখানে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে ওই জঙ্গিদের গুলি বিনিময় চলছে। সোমবার পুনরায় দখল নেওয়ার সময় জঙ্গিদের গুলিতে নিরাপত্তা বাহিনীর তিন সদস্য নিহত হন। আজ মঙ্গলবার সকালেও ভবনের ভেতরে অবস্থান করা জঙ্গিদের সঙ্গে গুলিবিনিময় হচ্ছিল বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। মঙ্গলবার সকালে রকেট ও ভারি স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র থেকে গোলাগুলি হয়েছে।

এক শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, সোমবার রাত হয়ে যাওয়ায় অন্ধকারের কারণে অভিযান স্থগিত করা হয়েছিল। তবে রাতে ফ্লাড লাইট জ্বালিয়ে রাখা হয় যাতে জঙ্গিরা পালিয়ে যেতে না পারে। ৭০ রুমের সাত তলা এ সরকারি ভবনটি পাম্পোরে ঝেলুম নদীর তীরে এবং শ্রীনগর সিটি সেন্টার থেকে ১২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। সোমবার ভবনটির দখল নেওয়ার জঙ্গিদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিরাপত্তা বাহিনীর দুই সদস্য ও এক পুলিশ আহত হয়েছেন। জঙ্গিদের হটিয়ে ভবনটি দখলমুক্ত করতে সোমবার যৌথ অভিযান শুরু করে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। এতে অংশ নেয় ভারতীয় সেনাবাহিনী, রাজ্য পুলিশের স্পেশাল অপারেশনস গ্রুপ এবং সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্স (সিআরপিএফ)।

এর আগে ফেব্রুয়ারিতে ওই ভবন নিজেদের দখল নিয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর ৫ সদস্য এবং এক বেসামরিক মানুষকে হত্যা করেছিল জঙ্গিরা। কাশ্মির প্রশ্নে ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনা যখন চূড়ান্ত তখন ধারাবাহিক জঙ্গি হামলার এই পর্যায়ে আবারও পাম্পোরের সরকারি ভবন আক্রান্ত হলো। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, সোমবার সকাল সাড়ে ৬টা নাগাদ কাশ্মির ভূস্বর্গের পাম্পোরের সরকারি প্রতিষ্ঠান উদ্যোক্তা উন্নয়ন সংস্থা হামলা চালায় বন্দুকধারীরা। প্রতিষ্ঠানটিতে ঢুকে পড়ে ৩ অস্ত্রধারী। নজর এড়াতে প্রথমে বহুতল ভবনটিতে আগুন ধরিয়ে দেয় তারা।

ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, পাম্পোরে উদ্যোক্তা  উন্নয়ন সংস্থার সরকারি ভবনটিতে গোলাগুলির শব্দ শোনার পর ভবনটিকে ঘিরে ফেলে সামরিক ও আধাসামরিক বাহিনীর সদস্যরা। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, ভবনের ভেতরে অন্তত ২ জঙ্গি লুকিয়ে আছে বলে নিজস্ব সূত্রে জানতে পেরেছে তারা। উদ্যোক্তা উন্নয়ন সংস্থা এই প্রতিষ্ঠানটিতেই গত ফেব্রুয়ারি মাসে হামলা চালিয়েছিল ৩ অস্ত্রধারী। ৪৮ ঘণ্টা লড়াইয়ে সেই তিন জঙ্গিকে হত্যার মধ্য দিয়ে ভবনটিকে জঙ্গিমুক্ত করা হয়েছিল। ওই ঘটনায় ৫ জন নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি এবং একজন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছিলেন।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button