আন্তর্জাতিক

ত্রিপক্ষীয় চুক্তির পর আলেপ্পোর যুদ্ধের অবসান

ঢাকা, ১৪ ডিসেম্বর , (ডেইলি টাইমস ২৪):

ত্রিপক্ষীয় চুক্তির মধ্য দিয়ে সিরিয়ার আলেপ্পো শহরে সরকারি বাহিনী এবং বিদ্রোহীদের মধ্যকার পাঁচ বছরেরও বেশি সময় ধরে চলা যুদ্ধ সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

 তুরস্কে ত্রিপক্ষীয় চুক্তি হওয়ার পর মঙ্গলবার দিবাগত রাত থেকে আলেপ্পোতে সরকারি ও বিদ্রোহী বাহিনীর মধ্যে অস্ত্রবিরতি শুরু হয়। শহরটি এখন সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট আসাদের বাহিনী নিয়ন্ত্রণ করছে।

চুক্তি অনুযায়ী বুধবার আলেপ্পো শহর থেকে বিদ্রোহী যোদ্ধারা নিজেরা প্রত্যাহার করে নেয়ার কথা। খবর বিবিসি ও রয়টার্সের।

জাতিসংঘে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত ভিতালি চারকিন যুদ্ধ সমাপ্তির কথা জানিয়েছেন।

তিনি জানান, সিরিয়ার সরকারি বাহিনী বিদ্রোহীদের দখলে থাকা শেষ কয়েকটি এলাকাও দখল করে নিয়েছে। এছাড়া বিদ্রোহী যোদ্ধাদের এলাকা ত্যাগের সুযোগ দিয়েছে সিরীয় সেনারা। বিদ্রোহীরা এ প্রস্তাব মেনে নিলেও জানিয়েছে সাধারণ নাগরিকদেরও এলাকা ছাড়ার সুযোগ দিতে হবে।

চারকিন বলেন,  সাধারণ নাগরিকরা আলেপ্পোতে থাকতেও পারেন, আবার নিরাপদ স্থানে চলে যেতেও পারেন। তারা বিভিন্ন সেবামূলক কর্মকাণ্ডের সুবিধাও নিতে পারেন। তাদের কেউ ক্ষতি করবে না।

জানা গেছে, বিগত কয়েক ঘণ্টার মধ্যে আলেপ্পোতে কোনো বোমাবর্ষণ বা সংঘাত হয়নি।

কয়েক মাস ধরেই রুশ বিমানবাহিনীর সহযোগিতায় আলেপ্পোতে বিদ্রোহীদের কোণঠাসা করে ফেলে সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় বাহিনী। রাশিয়া ও ইরানের সহযোগিতা পাওয়া সিরিয়ার বিশেষ বাহিনী যুদ্ধ ক্ষেত্রে নিয়মবহির্ভূতভাবে হত্যাকাণ্ড চালাচ্ছে অভিযোগ এনে যুদ্ধ সমাপ্তির চুক্তি প্রস্তাব করে জাতিসংঘ।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, সিরীয় বাহিনী চারটি এলাকায় ৮২ জন বেসামরিক নাগরিককে হত্যা করেছে। এমনকি নিহতের সংখ্যা এর থেকেও বেশি হতে পারে। ওই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বিষয়টি একেবারেই অস্বীকার করে রাশিয়া।

আলেপ্পোতে এখন আটকা পড়ে রয়েছেন ৫০ হাজার মানুষ। তাদের মধ্যে এক হাজার ৫০০ জন বিদ্রোহী গোষ্ঠীর সদস্য। বিদ্রোহীদের অনেকেই জিহাদী গোষ্ঠী আল-নুসরা ফ্রন্টের সদস্য।

তবে আলেপ্পো পুনর্দখলের পর এটাকে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের জন্য একটি বড় জয় হিসেবে দেখছেন বিশ্লেষকরা। তাদের মতে, সিরিয়া সরকারের পাশাপাশি এটা রাশিয়া ও ইরানের জন্য একটি বড় জয়।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button