রাজনীতি

ছাত্রদল নিয়ে আকরামের ওপেন চ্যালেঞ্জ!

ঢাকা, ২৭ ডিসেম্বর , (ডেইলি টাইমস ২৪):

জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল নিয়ে ঘোলাটে পরিস্থিতি দীর্ঘদিনের। বিএনপির ভ্যানগার্ড হিসেবে পরিচিত এ সংগঠনটির কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে গত ১৪ অক্টোবর। বর্তমান শীর্ষ নেতৃত্বের প্রতি অনাস্থা, শিগগিরই নতুন কমিটি ঘোষণা ও সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন নিয়ে পুঞ্জিভূত ক্ষোভের কথা দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সংগঠনটির নেতারা।

এদিকে নেতাকর্মীদের প্রতি ওপেন চ্যালেঞ্জ ছুঁড়েছেন সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান। একইসঙ্গে সংগঠনের ব্যাপারে কারো কোনো অভিযোগ থাকলে হাইকমান্ডকে জানানোর পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আজ (সোমবার) অনানুষ্ঠানিক এক বৈঠক করেছেন নেতাকর্মীরা। বৈঠক শেষে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর হস্তক্ষেপ কামনা করে শিগগিরই নতুন কমিটি ঘোষণার দাবি জানিয়েছে ক্ষুদ্ধ ৪১ নেতা।

সূত্রে জানা গেছে, কমিটির মেয়াদ শেষ হলেও নতুন কমিটি গঠনের প্রতিক্রিয়া এখনো শুরু না হওয়ায় অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। একইসঙ্গে ১ জানুয়ারি ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রমনাস্থ ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউটে যে আলোচনা সভার আয়োজন করা হচ্ছে তাতেও কমিটির ৯০ ভাগ নেতাকর্মীকে অবহিত করা হয়নি।

বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ক্রমান্বয়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম অালমগীর ও ছাত্রদলের কমিটির গঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ত সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের কাছে যাবেন তারা। এসব নেতাদের কাছে দ্রুত কমিটি গঠনসহ সংগঠনকে আরও চাঙ্গা করতে ভবিষ্যৎ করণীয় কি তা তুলে ধরবেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বৈঠকে অংশ নেয়া এক নেতা জানান, বর্তমান সভাপতি রাজীব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান বিএনপি চেয়ারপারসনকে ভুল বুঝিয়ে কমিটি গঠনে বিলম্ব করছেন। এ দুই শীর্ষ নেতা কমিটির ৭৩৪ সদস্যের আস্থা আছে এটা বুঝিয়ে কমিটির সময়কাল আরও দীর্ঘ করতে চাচ্ছেন।

তবে বাস্তবতা একেবারেই ভিন্ন উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, বর্তমান নেতৃত্বের প্রতি আর কারো আস্থা নেই। তাদের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর ক্রমান্বয়ে আস্থায় চীর ধরেছে। তাদের উচিত দ্রুত কমিটি দিয়ে সন্মান নিয়ে চলে যাওয়া।

এ বিষয়ে ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান জাগো নিউজকে বলেন, নতুন কমিটির বিষয়ে আমাদের কোনো বক্তব্য নেই। কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেবেন দলের সাংগঠনিক নেত্রী বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এর আগেও বর্তমান কমিটি গঠনের তিনি উদ্যােগ নিয়েছেন।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের দায়িত্ব বন্টন চূড়ান্ত করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, যারা এসব করছে তারা জাস্ট স্ট্যান্ডবাজির জন্য করছে।

১ জানুয়ারি সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক তাদের বিদায়ী ভাষণ দেবেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, পরবর্তী একবছর তো অামাদের থাকারও ইচ্ছা নেই। নিয়মতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় কমিটি গঠনের কাজ চলছে। তবে যারা হঠাৎ করে এসব করছে তাদের কর্মকাণ্ড সমর্থন করি না।

তিনি আরও বলেন, কারো কোনো অভিযোগ থাকলে হাইকমান্ডকে জানাতে পারেন। বড় সংসার সাজাতে একটু সময় লাগে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ১৪ অক্টোবর রাজীব আহসানকে সভাপতি ও আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে ২০১ সদস্য বিশিষ্ট ছাত্রদলের নতুন কমিটি (আংশিক) ঘোষণা করা হয়। পরবর্তীতে দ্বিতীয় ধাপে সদস্য সংখ্যা বাড়িয়ে ৭৩৭ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করে সংগঠনটি। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী দুই বছর পর কমিটির মেয়ার শেষ হলেও দৃশ্যত এখনো নতুন কমিটি গঠনের কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button