আন্তর্জাতিক

পাকিস্তানের জেলে বন্দি ভারতীয়দের মারধর করা হতো’

ঢাকা, ৩১ ডিসেম্বর , (ডেইলি টাইমস ২৪):

ভারতীয় সেনাবাহিনীর সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর পাকিস্তানের জেলে বন্দি ভারতীয়দের বেশ কয়েকবার মারধর করা হয়েছে। এমনটাই জানালেন সদ্য মুক্তি পাওয়া এক মৎস্যজীবী।

তিনি বলেছেন, ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর আমাদের নিয়মের বাইরে দুটি শিফটে কাজ করানো হতো। জেল কর্তৃপক্ষ আমাদের কাজে সন্তুষ্ট না হলেই মারধর করা হতো। ‘

সীমান্ত উত্তেজনার মধ্যেই দুই ধাপে ৪৩৯ জন ভারতীয় মৎস্যজীবীকে জেল থেকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান সরকার। গত ২৫ ডিসেম্বর ২২০ জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। আগামী ৫ জানুয়ারি আরো ২১৯ জনকে ছাড়া হবে বলে জানা গিয়েছে।

যাদের আটকে রাখা হয়েছে, তাদের অধিকাংশই গুজরাটের উপকূলবর্তী অঞ্চলের বাসিন্দা। এমনই একজন রামচন্দ্র ট্যান্ডেল। তিনি এক বছর আগে পাকিস্তানের জলসীমায় ঢুকে পড়ার অপরাধে ওখা বন্দর থেকে গ্রেপ্তার হন।

রামচন্দ্র জানিয়েছেন, প্রথমদিকে জেলে তারা হিন্দি ছবি দেখার সুযোগ পেতেন। কিন্তু গত কয়েক মাস ধরে শুধু পাকিস্তানের ছবি দেখানো হয়েছে। তারা পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে চিঠি দিয়ে জেল কর্তৃপক্ষকে বলিউডের ছবি দেখানোর নির্দেশ দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। কিন্তু তাতেও কাজ হয়নি।

এ ব্যাপারে গুজরাটের মৎস্যজীবী সংগঠনের অভিযোগ, ভগবান সোলাঙ্কি নামে এক বন্দির পক্ষাঘাত হয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত সংকটজনক। তিনি স্বাস্থ্যবান ব্যক্তি ছিলেন। তা সত্ত্বেও পক্ষাঘাত হওয়ায় জেল কর্তৃপক্ষের অবহেলা প্রমাণিত। তার পরিবারকেও কিছু জানানো হয়নি। মানবিকতার খাতিরে পক্ষাঘাত হওয়ার পরই ভগবানকে গুজরাঠে পাঠিয়ে দেওয়া হলে তার শারীরিক অবস্থার এতটা অবনতি হতো না।
সূত্র : এবিপি

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button