রাজনীতি

সার্চ কমিটি নিয়ে আশাবাদী মওদুদ আহমদ

ঢাকা, ২৮ জানুয়ারি , (ডেইলি টাইমস ২৪):

নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের নিয়ে গঠিত হবে বলে আশা প্রকাশ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, কেউ কেউ সার্চ কমিটি নিয়ে কোনো আশা না করলেও আমি এখনো আশাবাদী। এই বাছাই কমিটি এমন ব্যক্তিদের নাম সুপারিশ করবেন, যারা কোন বিশেষ দলের কাজে নিয়োজিত ছিলেন না এবং সরকারি কোন সুযোগ-সুবিধা ভোগ করেন না। যারা কোনো দলের সঙ্গে অতীতে বা বর্তমানে জড়িত নন। আপনারা এমন ব্যক্তিদের নাম সুপারিশ করবেন তাদের জ্ঞান, বুদ্ধি, সাহস ও ব্যক্তি চরিত্রকে প্রাধান্য দেবেন। তাহলে রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব হবে সেখান থেকে নির্বাচন কমিশন গঠন করা।
শনিবার জাতীয় প্রেসকাবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দল আয়োজিত এক গোলটেবিল আলোচনা সভায় ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, আমরা শেষ পর্যন্ত চেষ্টা করবো সমঝোতায় আসার জন্য। নির্বাচন ও নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে রাজনৈতিক সমঝোতা হতে হবে। কারণ এটা রাজনৈতিক ইস্যু। আর এই সমঝোতা আওয়ামী ও বিরোধী দলের মধ্যে হতে হবে। আর এটা না হলে আন্দোলন ছাড়া আমাদের সামনে আর কোন বিকল্প পথ থাকবে না। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে রাজপথের আন্দোলনের মাধ্যমে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে।
মওদুদ আহমদ বলেন, সার্চ কমিটি নিয়ে আমাদের যে প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল ঠিক তার উল্টো হয়েছে। বলেছিলাম, যাদের নিয়োগ দেয়া হবে তারা হবেন অবসরপ্রাপ্ত এবং সরকারি কোনো লাভজনক পদে নেই। এটাই ছিল মূল সুপারিশ। আমরা কারো নাম দেইনি। শুধু নীতিটার কথা বলছিলাম। কিন্তু দেখা গেলো হয়েছে উল্টোটা।
সার্চ কমিটির সদস্যদের মধ্যে কেবল একজনের বিষয়ে আপত্তি নেই জানিয়ে তিনি বলেন, সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের ব্যাপারে আমার কিছু বলার নেই। বাকিদের সম্পর্কে দলীয়ভাবে বলা হয়েছে। নতুন কিছু বলার নেই।
রাজনৈতিক সংকট উত্তরণে সমঝোতার কোনো বিকল্প নেই উল্লেখ করে মওদুদ বলেন, বিএনপি শেষ সময় পর্যন্ত সমঝোতার চেষ্টা করে যাবে। সেই সমঝোতা হতে হবে সরকার ও সত্যিকারের বিরোধী দলের মধ্যে। তা হবে নির্বাচন নিয়ে। আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করবো, আশা করি সরকার এগিয়ে আসবে। অন্যথায় আন্দোলনের কোনো বিকল্প থাকবে না।
রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণের প্রতিবাদে জাতীয় কমিটির ডাকা হরতালে সাংবাদিকদের ওপর পুলিশের হামলার নিন্দা জানিয়ে মওদুদ বলেন, রামপাল এখন জাতীয় নয়, গ্লোবাল ইস্যু। সারা দুনিয়ার মানুষ এখন এটা নিয়ে আলোড়ন শুরু হয়েছে। সব জায়গায় এর বিরুদ্ধে আওয়াজ উঠেছে। কিন্তু সেই হরতালে সাংবাদিকদের ওপর পুলিশ আক্রমণ করল অথচ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ‘কিছু হয়নি। একটু ধাক্কাধাক্কি হয়েছে।’ মোট কথা হলো, কোনো দ্বিমত থাকতে পারবে না। সরকারের কাজের কোনো বিরোধীতা করা যাবে না। কিন্তু এটা তো সাংঘাতিক ব্যাপার। সরকারের বোঝা উচিত এই সরকারই শেষ সরকার নয়।
Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button