জাতীয়

পুলিশকে বললেন তারা ‘অনুতপ্ত’

ঢাকা,১২ মে, (ডেইলি টাইমস ২৪):

সাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফ বনানীর হোটেল রেইন ট্রির ঘটনা অনুতপ্ত হয়েছেন। পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, ২৮ মার্চের ঐ ঘটনার জন্য তারা অনুতপ্ত। তবে পুরো ঘটনা তারা স্বীকার করেনি। আজ শুক্রবার দুপুরে দুজনকে আদালতে তোলা হবে একই সাথে রিমান্ডের আবেদন করবে পুলিশ।

সাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফকে সিলেটে গ্রেপ্তার করা হয় বৃহস্পতিবার। গ্রেপ্তার  করে আজ শুক্রবার ভোরে ঢাকায় আনা হয়েছে।   বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে সিলেট থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। ধর্ষণের আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশ সদর দপ্তরের সমন্বয়ে একাধিক টিম তৈরি করা হয়। এরমধ্যে সিলেট মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি), জেলা পুলিশ এবং ঢাকা থেকে আসা পুলিশের স্পেশাল ব্রাঞ্চের টিম সহ একাধিক দল অভিযানে অংশ নেয়। তাদের গ্রেপ্তার করা হয় নগরীর পাঠানটুলার রশিদ ভিলা থেকে।

উপ পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) মাসুদুর রহমান জানান, বনানী ধর্ষণ মামলার আসামি সাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফকে ভোররাতে ঢাকায় আনা হয়েছে। আজ দুপুরে দুজনকে আদালতে তোলা হবে একই সাথে জামিন চাইবে পুলিশ।

পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, বনানী থানায় দায়েরকৃত ধর্ষণ মামলাটি ডিটেক্টিভ ব্রাঞ্চ (ডিবি) পুলিশের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

বনানীর ‘দ্য রেইন ট্রি’ হোটেলে জন্মদিনের পার্টিতে আমন্ত্রণ করে ওই দুই বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ৬ মে সংশ্লিষ্ট থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। বনানী থানায় দায়ের করা এ মামলায় পাঁচজনকে আসামি করা হয়। আসামিরা হলেন- সাফাত আহমেদ, নাঈম আশরাফ, বিল্লাল হোসেন, সাদমান সাকিফ ও আজাদ। মামলায় অভিযোগ করা হয়, আসামি সাফাত ও নাঈম ওই দুই তরুণীর বন্ধু। জন্মদিনের পার্টিতে দাওয়াত দিয়ে হোটেলে নেওয়ার পর সাফাত ও নাঈম হোটেলের একটি কক্ষে নিয়ে রাতভর দুই তরুণীকে আটকে রেখে ধর্ষণ করে। অপর তিন আসামির বিরুদ্ধে ধর্ষণে সহায়তা ও ভিডিও ধারণের অভিযোগ আনা হয় মামলায়।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button