জাতীয়লিড নিউজ

খামার প্রকল্পের ২৮ লাখ সদস্যের পরিবার উপকৃত হচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের আওতায় গঠিত ৬৬ হাজার ৬০টি সমিতিতে প্রায় ২৮ লাখ সদস্যের পরিবার উপকৃত হচ্ছে।

৩০ মে বুধবার প্রধানমন্ত্রী তার জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকারি দলের সদস্য কামরুল আশরাফ খানের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের আওতায় প্রথম পর্যায়ে মোট ১ লাখ ৮৫ হাজার ৪৭২ জন সদস্যের মাঝে গাভী, ঢেউটিন, হাঁস মুরগি, গাছের চারা এবং সবজি বীজ হস্তান্তর করা হয়।

তিনি বলেন, পরবর্তীতে প্রকল্পের ২য় সংশোধনের পর সদস্যদের নিজস্ব সঞ্চয় ১ হাজার ৬০ কোটি টাকার বিপরীতে সদস্যদের উৎসাহ বোনাস হিসেবে ৮৫২ কোটি টাকা এবং সমিতিগুলোকে ঘূর্ণায়মান তহবিল হিসেবে ১ হাজার ১০৫ কোটি টাকা সরকারি অনুদান প্রদান করা হয়েছে। এক্ষেত্রে মোট সরকারি অনুদানের পরিমাণ ১ হাজার ৯৫৭ কোটি টাকা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার ইতোমধ্যে প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় বৃদ্ধি করে ৮ হাজার ১০ কোটি ২৭ লাখ টাকা উন্নীত করেছে। প্রকল্পের মেয়াদ ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত বর্ধিত করেছে। এ মেয়াদকালে ৩৬ লাখ সদস্যকে সমিতিভুক্ত করে মোট ৬০ হাজার সমিতি গঠনের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের আওতায় উপকারভোগীদের তহবিল গঠন, ঋণের সঠিক ব্যবহারসহ সকল কার্যক্রম নিবিড় পর্যবেক্ষণের জন্য প্রকল্পের আওতায় নিয়োগপ্রাপ্ত উপজেলা সমন্বয়কারী, ফিল্ড সুপারভাইজার এবং মাঠ সহকারী নিয়োজিত রয়েছে।

তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং জেলা প্রশাসকগণ এ সকল কার্যক্রম নিয়মিত তদারকি করে থাকে। সমিতি বা সমিতিভুক্ত সদস্যগণের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের জন্য ইউনিয়ন বাস্তবায়ন ও তদারকি কমিটি, উপজেলা বাস্তবায়ন ও তদারকি কমিটি এবং উপজেলা পরিবীক্ষণ কমিটি গঠন করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রকল্পের আর্থিক স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে ইতোমধ্যে ৬৪ জেলার ৪৮৫টি উপজেলায় অনলাইন ব্যাংকিং বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পভুক্ত সদস্যদের ব্যক্তিগত তথ্য প্রকল্পের কেন্দ্রীয় ডাটাবেইজে সংরক্ষিত রয়েছে।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button