জেলার সংবাদ

ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে স্ত্রী হত্যার অভিযোগ

ঢাকা, ০২ জুন, (ডেইলি টাইমস ২৪):

ভোলার লালমোহনে ভালোবেসে বিয়ে করার দেড় বছরের মাথায় লাশ হয়ে ঘরে ফিরলেন কলেজছাত্রী মাহমুদ মেহের তিথি। তার স্বামী জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রুবেল তিথিকে হত্যা করে লাশ হাসপাতালে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় বলে অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার রাতে লালমোহন উত্তর বাজারে ঘটনাটি ঘটে। তিথির বাবা ফুলবাগিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. কামাল হোসেন বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেছেন।

কামাল হোসেন অভিযোগ করেন, বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে রুবেলের ভাই জুয়েল মোবাইল ফোনে জানান তিথি আত্মহত্যা করেছে। এ খবরে দ্রুত হাসপাতাল গিয়ে দেখেন তিথির মরদেহ পড়ে আছে। রুবেল বা তার পরিবারের কেউ হাসপাতালে নেই। তিথির সারা শরীরে আঘাতের চিহ্ন। তার মেয়েকে সুকৌশলে রুবেল (ছাত্রলীগ নেতা)  হত্যা করে লাশ হাসপাতালে রেখে পালিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ২০১৫ সালের মার্চ মাসে লালমোহন বাজারের ব্যবসায়ী আজগর মিয়ার ছেলে রুবেল প্রেমের সম্পর্ক করে লালমোহন মহিলা কলেজ থেকে তার মেয়ে তিথিকে নিয়ে গিয়ে গোপনে বিয়ে করে। পরে তাকে লুকিয়ে রাখে কয়েকদিন। শেষ পর্যন্ত সামাজিক কারণে তাদের বিয়ে মেনে নেন তিনি।

কিছুদিন যেতে না যেতেই তিথিকে রুবেল বিভিন্ন সময় যৌতুকের জন্য মারধর করা শুরু করে। এতে তিথি আমাদের কাছে চলে আসে। পরে রুবেল গত ২৯ মার্চ তাদের বিবাহ বার্ষিকীতে উপজেলা যুবলীগের এক নেতার মধ্যস্থতায় মীমাংসা করে তিথিকে আবার রুবেলের ঘরে দেয়া হয়। এরপর থেকে আবারো মোটরসাইকেল কিনে দেয়ার জন্য তিথিকে নির্যাতন শুরু করে রুবেল। সে সবসময় ইয়াবায় আসক্ত থাকে। শেষ পর্যন্ত তিথিকে হত্যা করে। তিথির শরীরের বিভিন্ন স্থানে বেশ কিছু আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়।

লালমোহন হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডা. নাহিদ নূর জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১টার দিকে মৃতদেহ হাসপাতালে আনা হয়। পরীক্ষা করে দেখা যায়, চোখের মনি প্রসারিত ছিল, কোনো প্রেসার ছিল না। কিভাবে মারা গেছে, কেন মারা হয়েছে- তা ময়নাতদন্তের পর পুলিশ তদন্ত করে বের করবে।

এ ব্যাপারে লালমোহন থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হুমায়ুন কবীর জানান, রুবেলকে প্রধান আসামি করে তার ভাই, শ্বশুর-শাশুড়িসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে তিথির বাবা মো. কামাল হোসেন বাদী হয়ে মামলা করেছেন। লাশ উদ্ধার করতে হাসপাতালে গেলে স্বামী বা শ্বশুরবাড়ির কাউকে পাওয়া যায়নি। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ভোলা মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button