আন্তর্জাতিক

রক্তাক্ত কাবুলে সাধারণ মানুষের প্রতিবাদের ঝড়

ঢাকা, ০২ জুন, (ডেইলি টাইমস ২৪):

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে গত বুধবারের ভয়াবহ বোমা হামলার প্রতিবাদে গতকাল শুক্রবার শতশত মানুষ বিক্ষোভ করেছে। এসময় তারা সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা বিধানে সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে  দাবি করে  অবিলম্বে তাদের পদত্যাগ দাবি করেন।
বিক্ষোভকারীরা জানান,সরকার স্বেচ্ছায় পদত্যাগ না করলে তাদেরকে পদত্যাগে বাধ্য করা হবে। বিক্ষোভ একমুহূর্তে রণক্ষেত্রে পরিণত হলে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করতে ফাঁকা গুলি করে। বিক্ষোভকারীরা জানান, আফগানিস্তান আজ ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। মানুষের এখানে আর কোন নিরাপত্তা নেই। সরকার সাধারণ মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। তাই এই সরকার তাদের ক্ষমতায় থাকার সব অধিকার হারিয়ে ফেলেছে।
বিক্ষোভকারীরা জানান, বুধবারের ভয়াবহ বোমা হামলায় হতাহতদের ছবি এখনো আমাদের চোখে ভাসছে। আমরা অনেককে ছটফট করতে করতে মারা যেতে দেখেছি। বর্বর হামলায় শিশুরাও পর্যন্ত রেহাই পাইনি। তাই আমরা আর এভাবে মৃত্যুর মিছিল দেখতে চাই না। আমরা শান্তিপূর্ণভাবে বেঁচে থাকতে চাই। যেখানে ওই ট্রাক হামলা চালানো হয়েছিল সেই জায়গায়ই জড়ো হয় বিক্ষোভকারীরা। এসময় তারা সরকার বিরোধী ও তালেবান বিরোধী শ্লোগান দিতে থাকে। একপর্যায়ে তারা প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের দিকে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়।
পুলিশ সেসময় বিক্ষুব্ধদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ারগ্যাস ও জলকামান ব্যবহার করে। সেদিনের ওই হামলায় কমপক্ষে ৯০ জন লোক নিহত হয়। এটি চলতি বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা বলে বিবেচনা করা হচ্ছে। এখনো পর্যন্ত কোন গ্রুপ এ হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে আফগান গোয়েন্দা কর্মকর্তারা একে তালেবান অধিভুক্ত হাক্কানি নেটওয়ার্কের কাজ বলে আশঙ্কা করছে। তারা বলছেন, পাকিস্তানের সহায়তায় এ হামলা চালানো হয়েছিল। এ অভিযোগের তীব্র বিরোধিতা করেছে পাকিস্তান।  তারা একে ভিত্তিহীন অভিযোগ বলে দাবি করেছে। এদিকে তালেবান কিংবা আইএসের পক্ষ থেকেও এ হামলার দায় স্বীকার করে কোন বিবৃতি দেওয়া হয়নি। সাধারণত তালেবান বা আইএস কোন হামলা চালিয়ে থাকলে তারা পরে বিবৃতি জানিয়ে তা স্বীকার করে নেয়। কিন্তু এখানে তেমন কিছুই হয়নি।
বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ,সরকার তাদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। তাই এই হত্যার দায় সরকার কোনভাবে এড়াতে পারে না। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এ জন্য কাবুল সরকারের ওপর চাপ দেওয়া উচিত। কেননা তারা সরকার চালানোর সব যোগ্যতা হারিয়ে ফেলেছেন।
একজন বিক্ষোভকারী জানান, আফগানিস্তানে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা এখন নিত্য নৈমিত্তিক ঘটনা। কিন্তু সরকারের কার্যকলাপ দেখে মনে হচ্ছে এটা তাদের কাছে কোন বিষয় নয়। নিরীহ মানুষের মারা যাওয়া তাদের বিন্দুমাত্র কোন চিন্তার উদ্রেক করে না। কিন্তু এভাবে চলতে থাকলে এটা মৃত্যুপুরীতে পরিণত হয়ে যাবে। বিবিসি।
Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button