আন্তর্জাতিক

পদত্যাগের ভাবনা নেই মের, যাচ্ছেন বাকিংহাম প্যালেসে

ঢাকা, ০৯ জুন, (ডেইলি টাইমস ২৪):

পদত্যাগের কোনো চিন্তাভাবনা আপাতত নেই যুক্তরাজ্যের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের। বরং সরকার গঠনের অনুমতি নিতে বাকিংহাম প্যালেসে যাচ্ছেন তিনি।

আজ শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর সাড়ে ১২টায় সরকার গঠনের অনুমতি নিতে রানী এলিজাবেথের সঙ্গে দেখা করতে বাকিংহাম প্যালেস যাবেন থেরেসা মে।

বৃহস্পতিবার (৮ জুন) যুক্তরাজ্যের মধ্যবর্তী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এর ফল প্রকাশিত হয় আজ শুক্রবার।

হাউস অফ কমন্সের ৬৫০ আসনের মধ্যে ঘোষিত ফল অনুযায়ী, ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি পেয়েছে ৩১৯টি আসন, লেবার পার্টি পেয়েছে ২৬১টি, স্কটিশ ন্যাশনালিস্ট পার্টি পেয়েছে ৩৫টি, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি ১২টি, ডিইউপি ১০টি ও অন্যান্য দল পেয়েছে ১৩টি আসন। সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজন ৩২৬ আসন।

সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পেলেও ডেমোক্রেটিক ইউনিয়নিস্ট পার্টিকে (ডিইউপি) নিয়ে ‘ঝুলন্ত’ সরকার গঠন করতে যাচ্ছে থেরেসা মের কনজারভেটিভ পার্টি। সেক্ষেত্রে দুই দলের মোট আসন ৩২৯ হবে এবং সরকার গঠনের জন্য সংখ্যাগরিষ্ঠতার চেয়ে তিনটি আসন বেশি হবে।

বর্তমান বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতার জেরেমি কোরবিন বৃহস্পতিবার রাতেই পদত্যাগের জন্য প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মের প্রতি আহ্বান জানান। তবে মে তার সেই আহ্বান কানে তুলছেন না বলেই মনে হচ্ছে।

১০নং ডাউনিং স্ট্রিটে থাকার অভিপ্রায় ব্যক্ত করে থেরেসা মে বলেছেন, ‘ব্রেক্সিটের আর মাত্র ১০ দিন বাকি। এই মুহূর্তে দেশের জন্য স্থিতিশীলতা দরকার।’

নির্বাচনে দলের ফলাফলে প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় কনজারভেটিভ পার্টির এমপি নাইজেল ইভান্স বলেছেন, ‘নির্বাচনের ফলাফল তার দলের জন্য পুরোপুরি বিপর্যয়।’ তিনি দাবি করেছেন, তার নিজ দলই ‘নির্বাচনী প্রচারণা ছিনতাই’ করেছে।

ঝুলন্ত পার্লামেন্ট অবশ্য ব্রিটেনের জন্য নতুন নয়। ২০১০ সালে কনজারভেটিভরা লিবারেল ডেমোক্র্যাটদের নিয়ে ঝুলন্ত পার্লামেন্ট গঠন করেছিল। এর আগে ১৯৭৪ সালে ঝুলন্ত পার্লামেন্ট গঠন করে লেবার পার্টিকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দিয়েছিল কনজারভেটিভরা। অবশ্য, ওই পার্লামেন্ট বেশি দিন টেকেনি। মাত্র আট মাসের মাথায় নতুন নির্বাচন করতে হয়েছিল।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button