আন্তর্জাতিক

জাতিসংঘে ট্রাম্পের প্রথম ভাষণের নিন্দা কিছু বিশ্ব নেতার

ঢাকা, ২১ সেপ্টেম্বর,(ডেইলি টাইমস ২৪):

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭২ তম অধিবেশনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রথম ভাষণের নিন্দা জানিয়েছেন বিশ্বের কয়েকটি দেশের নেতারা। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বক্তব্যে উত্তর কোরিয়া, ইরান, ভেনিজুয়েলা এবং সিরিয়া নিয়ে কঠোরতা প্রকাশ পেয়েছে। এই প্রথম কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্ট হুমকির সুরে জাতিসংঘে ভাষণ দিলেন।
প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, হুমকি হলে উত্তর কোরিয়াকে সম্পূর্ণ ধ্বংস করা হবে। আর ইরানে গণতন্ত্রের আড়ালে একনায়কতন্ত্রের শাসন চলছে। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অজ্ঞতাসুলভ বক্তব্য মধ্যযুগের। এই যুগে জাতিসংঘে মানায় না। তিনি ইরানের নাগরিকদের জন্য ভুয়া সহানুভূতি প্রকাশ করেছেন যা কাউকে বোকা বানাতে পারবে না।
তবে উত্তর কোরিয়া এখন পর্যন্ত কোনো ধরনের প্রতিক্রিয়া জানায়নি। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যখন বক্তব্য দেন তখন অধিবেশনে উত্তর কোরিয়ার আসনগুলো খালি ছিল। উপস্থিত অনেকে আবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বক্তব্য শুনে বিমর্ষ হন। সুইডেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্গট ওয়ালস্ট্রম বলেছেন, এটা ভুল সময়ে, ভুল দর্শকদের সামনে ভুল বক্তব্য। ভেনিজুয়েলাকে নিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, দেশটিতে সমাজতান্ত্রিক একনায়কতন্ত্র চলছে। দেশটি দুর্নীতিপরায়ণ হয়ে পড়েছে। যুক্তরাষ্ট্র দেশটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে প্রস্তুত।
ভেনিজুয়েলার পররাষ্ট্রমন্ত্রী জর্গ আররিয়েজা বলেন, ট্রাম্প পুরো বিশ্বের প্রেসিডেন্ট নন যে তার কথা শুনতে হবে। তিনি তো নিজের সরকারকেই পরিচালনা করতে পারছেন না। বলিভিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভো মোরেলেস বলেছেন, আমি বিস্মিত হইনি যে, বিত্তশালী ট্রাম্প সমাজতন্ত্রকে আঘাত করবেন। কিন্তু আমরা আদর্শিকভাবে ঐক্যবদ্ধ আছি। ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রন বলেছেন, ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি বাতিল করা মারাত্মক ভুল কাজ হবে। তবে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বক্তব্যের প্রশংসা করে বলেছেন, আমি এখন পর্যন্ত এমন সাহসী বক্তব্য আর কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে পাইনি। তিনি মধ্যপ্রাচ্যে প্রভাব বিস্তারের বিষয়ে ইরানকে সতর্ক করে দেন। সিএনএন ও বিবিসি।
Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button