বিনোদন

পুরো বিষয়টিই আমার কাছে হাস্যকর মনে হয়েছে

ঢাকা,০৮ অক্টোবর,(ডেইলি টাইমস ২৪):

* মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের প্রথম ঘোষণায় আপনি সেরা হয়েছেন। পরের ঘোষণায় দ্বিতীয় রানারআপ। আর সংশোধিত ঘোষণায় সেরা দশেও আপনি নেই। কেন?
** প্রথম থেকেই বলে আসছি ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’র আসরে আমার সঙ্গে ন্যায়বিচার হয়নি। শেষ ঘোষণায়ও হল না। বিষয়টি আমি আগেই আন্দাজ করতে পেরেছিলাম। তাই শেষ ফলাফল ঘোষণার দিন উপস্থিত হইনি। আর এ জন্যই নাকি আমাকে সেরা দশেই রাখেননি। ফাইনাল রাউন্ডের পর থেকে টোটাল বিষয়টিই আমার কাছে কেমন যেন হাস্যকর মনে হয়েছে। ভালোভাবে চলে আসা একটা আয়োজনের সঙ্গে ইচ্ছা করে বিতর্ক জড়িয়ে দেয়া হল।

* ইচ্ছা করে বিতর্কে জড়িয়ে দেয়ার মানেটা ব্যাখ্যা করুন…

** দেখুন, প্রথম থেকেই আমরা কঠোর পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে চূড়ান্ত রাউন্ডে পৌঁছাই। ফলাফল শুধু চূড়ান্ত পর্বের পারফর্মেন্সের বিচারে হওয়ার কথা নয়। এটা দীর্ঘ এক মাসে আমাদের পারফর্মেন্সের ওপর নির্ভর ছিল। অথচ গালা রাউন্ডে এসে সব চিত্র পাল্টে গেল। নিজেদের ইচ্ছামতো নাম তারা ঘোষণা দিল। এটা একেবারেই অন্যায়। এখানেই বিতর্কটা থেকে যায়।

* তাহলে কি ন্যায়বিচার পাননি বলেই পরিবর্তিত ফলাফলের ঘোষণায় আসেননি?

** শুধু এটিই নয়। সংবাদ সম্মেলনের বিষয়ে আগে আমাকে তেমনভাবে জানানো হয়নি। আমন্ত্রণ করা হয়নি। পরিবর্তিত ফলাফল জানানোর দিন সকালে ফোন দিয়ে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের একজন আমাকে টাইম ও ভেন্যু জানায়। অথচ তারা চূড়ান্ত রাউন্ডে আমার সঙ্গে যে ভুল করেছে তার বিপরীতে আমাকে একবার দুঃখও প্রকাশ করেননি। তারা এমন ভাব দেখিয়েছেন যে, প্রথম হওয়ার যোগ্যই আমি ছিলাম না।

* আপনার সঙ্গে এমন আচরণের কারণ কী?

** জানি না। তবে ফাইনাল রাউন্ডের পর একটি টিভি চ্যানেলের লাইভ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছিলাম আমি। সেখানে স্কাইপে উপস্থিত ছিলেন অনুষ্ঠানের আয়োজক অন্তর শোবিজের চেয়ারম্যান স্বপন চৌধুরী ও বিচারক শম্পা রেজা। তখন আয়োজক প্রতিষ্ঠানের কর্ণধারের কাছে আমি ন্যায়বিচার পাব কিনা জিজ্ঞেস করেছিলাম। তিনি আমাকে এমন প্রশ্নের উত্তর দেয়ার প্রয়োজন মনে করছেন না বলে এড়িয়ে গিয়েছেন। তখন থেকেই আমার ওপর হয়তো ক্ষোভ জন্মেছে। তবে আমি এটা আশা করিনি। শুরু থেকে পুরো প্রক্রিয়াটা কোনো ধরনের সমালোচনা ছাড়া এলেও ফাইনালের দিন থেকে সমালোচনা শুরু হওয়াটা আমার কাছেও ভালো লাগেনি। তাই এটি নিয়ে দু-একটি কথাও বলেছি। এটা বিবেকের তাড়নাতেই বলেছি।

* স্বপন চৌধুরী বলেছেন আপনি উপস্থিত না হওয়াতেই সেরা দশ থেকে বাদ দেয়া হয়েছে আপনাকে। এটাকে কতটা যুক্তিযুক্ত মনে করছেন?

** আমিও এটা শুনেছি। এ কথাটিও আমার কাছে হাস্যকর মনে হয়েছে। বিজয়ী হিসেবে যেহেতু এভ্রিলের নাম ঘোষণা করা হয়েছে। তাকে নিয়ে বিতর্ক উঠার পর যদি তাকে বাদ দেয়া হয় তা হলে তো তার পরের জনের নামই ঘোষণা করা হবে। এখানে তো এত কাহিনী দেখানোর দরকার নেই। দ্বিতীয় ঘোষণার বেলায় লাইভে দেখলাম ফের প্রতিযোগীদের সামনে এনে প্রতিযোগিতা করানোর কথা হচ্ছে। যদিও সাংবাদিক ভাইদের কথার কারণে সেটি আর হয়নি। ঠিক আছে আমি উপস্থিত হইনি। এ ক্ষোভে তো তারা আমাকে প্রথম দশ থেকেই বাদ দিতে পারে না। এটা করে পুরো আয়োজনটিকেই বিতর্কের মুখে ঠেলে দেয়া হল।

* আয়োজকরা বলেছেন প্রায় একই রকম হওয়ায় আপনার নাম ভুলে ঘোষণা করা হয়েছিল। আপনার কী মনে হয়?

** আমাকে কেউ জান্নাতুল সুমাইয়া নামে ডাকত না। আয়োজক, বিচারক, শিনা চৌহানসহ সবাই আমাকে হিমি নামেই ডাকত। তাই এখানে নামের বানানের ভুল হওয়ার প্রশ্নই আসে না। আর দেখুন সংবাদ সম্মেলন শেষে মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ হিসেবে ঘোষণা করা হয় প্রথমবার ঘোষিত তালিকার প্রথম রানার আপের নাম। অথচ হিসাব অনুযায়ী এবার প্রথম রানার আপ হওয়ার কথা ছিল আমার। তাও হয়নি। সত্যি সেলুকাস!

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button