আন্তর্জাতিক

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে ইন্তিফাদার ডাক হামাসের

ঢাকা, ৮ ডিসেম্বর , (ডেইলি টাইমস ২৪):

জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতি দিয়ে নতুন করে সহিসংতা উসকে দিচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তাঁর এ ঘোষণায় বিশ্বজুড়ে উঠেছে নিন্দার ঝড়। এরপরই নতুন ইন্তিফাদার (গণ-অভ্যুত্থান) ডাক দিয়েছে ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী দল হামাস।

এএফপি ও আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের ঘোষণার পর আগামীকাল শুক্রবার জরুরি বৈঠকে বসতে যাচ্ছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। কিছুদিন আগে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে জেরুজালেমে ইসরায়েলের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠাকে অবৈধ বলে খসড়া পাস হয়েছিল।

হামাস নেতা ইসমাইল হানিয়া বলেছেন, জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানীর স্বীকৃতি দিয়ে ট্রাম্প পক্ষান্তরে ফিলিস্তিনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। বৃহস্পতিবার ফিলিস্তিনের গাজায় এক বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি নতুন করে ইন্তিফাদার ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, ঘোষণার মাধ্যমে ফিলিস্তিনি-ইসরায়েলি শান্তিপ্রক্রিয়াকে হত্যা করা হয়েছে। এর মাধ্যমে অসলো চুক্তি এবং পুনর্বাসন-প্রক্রিয়াকে হত্যা করা হয়েছে।

এ বছরের মে মাসে হামাসের প্রধান নির্বাচিত হন ইসমাইল হানিয়া। হানিয়া বলেন, ফিলিস্তিনিরা সম্পূর্ণ জেরুজালেমকে নিজেদের ভবিষ্যৎ রাষ্ট্রের রাজধানী মনে করেন। তিনি বলেন, ‘ইহুদিবাদী শত্রুদের বিরুদ্ধে ইন্তিফাদা শুরু করতে আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।’ তিনি বলেছেন, শুক্রবার দিনটি যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে র‍্যালি করুন আপনারা।

ইসমাইল হানিয়ার এ ঘোষণা কিছুক্ষণ পরেই গাজা, পশ্চিম তীরের রামাল্লা, হেবরন ও নাবলুসের রাস্তায় নেমে আসেন বিক্ষোভকারীরা। শুরু হয় ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষ। বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে ইসরায়েলি সেনারা।

এ দিনটিকে ইসমাইল হানিয়া ‘ক্ষোভ দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেন। তিনি ঘোষণায় বলেন, ‘দখলদারদের বিরুদ্ধে ৮ ডিসেম্বর হোক আমাদের ইনতিফাদার প্রথম দিন।’

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হামাসকে একটি সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে দেখে থাকে ইসরায়েল ও যুক্তরাষ্ট্র। ইসরায়েলের অস্তিত্ব স্বীকার করে না হামাস। এ সংগঠনের আত্মঘাতী বোমারুরা ২০০০ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত শেষ ইনতিফাদায় সহায়তা করেছিল। ইসমাইল হানিয়ে বলেন, জেরুজালেম ও ফিলিস্তিনের জন্য হুমকি এমন কৌশলগত কোনো বিপদের মুখোমুখি হওয়ার জন্য সব হামাস সদস্য ও এর শাখা-প্রশাখাকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তাদেরকে নতুন নির্দেশনার জন্য পূর্ণ প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে।

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button