তৈরি পোশাক শিল্প পণ্যের চারটি আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী শুরু

0
67

ঢাকা , ১৭ জানুয়ারি , (ডেইলি টাইমস২৪):

তৈরি পোশাক শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের সামনে সর্বাধুনিক বৈশ্বিক প্রযুক্তি তুলে ধরতে বৃহস্পতিবার রাজধানীতে শুরু হয়েছে চারটি আন্তর্জাতিক প্রর্দশনী। ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) প্রধান অতিথি হিসেবে চার দিনব্যাপী এসব প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন।

পোশাক শিল্পের মেশিনারি এবং এর সহায়ক পণ্যের ১৮তম আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী ‘গার্মেন্টেক বাংলাদেশ ২০১৯’, ১০ম ‘ইয়ার্ন অ্যান্ড ফেব্রিক সোর্সিং ফেয়ার’, ১০ম ‘গ্যাপেক্সপো-২০১৯’ এবং ‘প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং ইন্টারন্যাশনাল এক্সপো বাংলাদেশ ২০১৯’ শীর্ষক প্রদর্শনী চারটি চলবে আগামী ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত। বসুন্ধরার ১০টি হলজুড়ে প্রদর্শনীগুলোতে ২৪টি দেশের ৫১০টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী বলেন, বিশ্বে গার্মেন্টস শিল্পে আমাদের অবস্থান আজ অনেক উন্নত। যাদের উদ্যোগে আজ এসব মেলার আয়োজন করা সম্ভব হয়েছে তাদের ধন্যবাদ জানাই। এই খাতটি কর্মসংস্থানের অনেক সুযোগ করেছে, ভবিষ্যৎতেও বেকার সমস্যা সমাধানে এই খাত কার্যকরী ভূমিকা রাখাবে। পোশাক শিল্প খাতের উন্নয়নে ও বিদ্যমান সমস্যা সমাধানে শিল্প মন্ত্রালয় সবসময় অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিজিএপিএমইএর ট্রেড ফেয়ারের স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মোয়াজ্জেম হোসেন মতি, বিজিএপিএমইএর প্রেসিডেন্ট আব্দুল কাদের খান, এফবিসিসিআইর প্রেসিডেন্ট মো. শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, বিজিএপিএমইএর ফার্স্ট ভাইস প্রেডিডেন্ট কে এইচ লতিফুর রহমান আজিম প্রমুখ।

আগের আসরগুলোর ধারাবাহিকতায় এবারের প্রদর্শনীতে বাংলাদেশসহ ভারত, চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, তুরস্ক, ভিয়েতনাম, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, শ্রীলঙ্কা, ইতালি, জার্মানি, সিঙ্গাপুর, জাপান, তাইওয়ান, সুইজারল্যান্ড, ফিনল্যান্ড, সুইডেন, থাইল্যান্ড, কলম্বিয়া, মালয়েশিয়া, কানাডা, স্পেন, ফ্রান্স এবং হংকংয়ের ৫১০টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছে। প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের উৎপাদন, নিরাপত্তা, কর্মপরিবেশ, দক্ষতা, পণ্যের মান, বৈচিত্র্য এবং মোড়কজাতকরণ ইত্যাদি কাজে ব্যবহৃত প্রযুক্তি তুলে ধরেছে।

সম্মিলিতভাবে প্রদর্শনীগুলোর আয়োজন করেছে জাকারিয়া ট্রেড আ্যান্ড ফেয়ার ইন্টারন্যাশনাল, আসক ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশন প্রাইভেট লিমিটেড এবং বাংলাদেশ গার্মেন্ট অ্যাকসেসরিজ অ্যান্ড প্যাকেজিং ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টারস অ্যাসোসিয়েসন (বিজিএপিএমইএ)।

আয়োজকরা জানান, ২০২১ সালের মধ্যে ৫০ বিলিয়ন ডলারের পণ্য রপ্তানির লক্ষ্যে দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাত। এমন অবস্থায় এ খাতকে উৎপাদন, নিরাপত্তা, কর্মপরিবেশ, দক্ষতা, পণ্যের মান, বৈচিত্র্য এবং মোড়কজাতকরণ সম্পর্কিত বিভিন্ন চ্যালেঞ্জের মধ্যে দিয়ে যেতে হচ্ছে। গার্মেন্টেক বাংলাদেশ ২০১৯ এর ১৮তম আসরে তৈরি পোশাক খাতের সামনে এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় এ খাতের জন্য সহায়ক পণ্যের প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা হয়েছে। আমরা আশা করছি, আয়োজিত প্রদর্শনী চারটি দেশের তৈরি পোশাক খাতের জন্য ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।

গার্মেন্টেক বাংলাদেশ ২০১৯ এ আর্ন্তজাতিকমানের স্যুয়িং, নিটিং, এমব্রয়ডারি, লন্ড্রি, ফিনিশিং, ডায়িং, ক্যাড/ক্যাম, প্রিন্টিং কাটিং, স্প্রেডিং মেশিনারি তুলে ধরবে।

১০ম বারের মতো অনুষ্ঠিতব্য ইন্টারন্যাশনাল ইয়ার্ন অ্যান্ড ফেব্রিকস সোর্সিং ফেয়ারে বিভিন্ন কোম্পানি প্রাকৃতিক ও কৃত্রিম সুতা এবং ওভেন ও নীট শিল্পের জন্য উভয়ের মিশ্রণের সর্বাধুনিক সংগ্রহ তুলে ধরবে। প্রদর্শনীতে আগত দর্শনার্থীদের সামনে গার্মেন্টস শিল্পের জন্য প্রাকৃতিক এবং কৃত্রিম ফেব্রিকের নতুন এবং উদ্ভাবনীমূলক মিশ্রন উপস্থাপন করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ গার্মেন্ট অ্যাকসেসরিজ অ্যান্ড প্যাকেজিং ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টারস অ্যাসোসিয়েশনের (বিজিএপিএমইএ) সহযোগিতায় গ্যাপেক্সপো-২০১৯ এর ১০ম আসরে রয়েছে বাংলাদেশসহ অন্যান্য দেশের শীর্ষ স্থানীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর গার্মেন্টস অ্যাকসেসরিজ এবং মোড়কসহ সংশ্লিষ্ট পণ্যের বিস্তৃত সংগ্রহ।

প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং ইন্টারন্যাশনাল এক্সপো বাংলাদেশ ২০১৯ প্রদর্শনীতে প্রিন্টিং, প্যাকেজিং ম্যাশিনারি এবং এর সংশ্লিষ্ট পণ্য এবং প্রযুক্তি তুলে ধরা হয়েছে।

প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ গার্মেন্টস অ্যাকসেসরিজ, লেবেলিং, জিপার, ট্যাগ, ট্যাপ, থ্রেড, রিবন, বাটন, রিভেট, লেইস, হুক, ট্রান্সফার ফিল্ম, পেপার, ইন্ক ইত্যাদিসহ সংশ্লিষ্ট মেশিনারি তুলে ধরা হয়েছে।

এসব প্রদর্শনী সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here