প্রধান সংবাদশিক্ষা

ডিইউইডিইসি’র উদ্যোগে ” ইন্টারন্যাশনাল ইয়ুথ আন্ট্রাপ্রেনারশিপ সামিট-২০২০” অনুষ্ঠিত

ঢাকা ,২৬ জুলাই,(ডেইলি টাইমস২৪): ঢাকা ইউনিভার্সিটি আন্ট্রাপ্রেনারশিপ ডেভেলপমেন্ট ক্লাবের (ডিইউইডিইসি) উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো দেশের বৃহৎ উদ্যোগ সম্মেলন “ইন্টারন্যাশনাল ইয়ুথ আন্ট্রাপ্রেনারশিপ  সামিট-২০২০”।

গত ২৪-২৫ জুলাই দুইদিন ব্যাপী সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয় যেখানে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ও উদ্যেগী তরুনেরা অংশগ্রহণ করেছেন। চলমান করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে ডিইউইডিইসি পুরো সম্মেলনটি অনলাইনে তাদের নিজস্ব ফেসবুক পেইজে লাইভে আয়োজন করে যেখানে অংশগ্রহণ প্রত্যাশী কেউ চাইলেই বিভিন্ন সেশন উপভোগের সুযোগ পেয়েছে।  

দুই দিন ব্যাপী চলমান এই সম্মেলনে ছিলো একুশটি বিষয়ভিত্তিক কথোপকথন সেশন ও একটি ডেমো পিচিং সেশন। সেশন গুলোতে স্পীকার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দেশ- বিদেশের পঞ্চাশের অধিক  অভিজ্ঞ ও সফল ব্যক্তিত্ব যারা বর্তমান প্রেক্ষাপটে স্টার্টআপ শুরু করার ঝুঁকি থেকে শুরু করে, তহবিল সংগ্রহ, অনুপ্রেরণা, দরকারি দক্ষতা, ব্যর্থতার কারণ, টেকসইভাবে উন্নয়ন সহ আরো নানা বিষয়ে দিকনির্দেশনামূলক ও গঠনমূলক আলোচনা করেছেন। বাংলাদেশি আলোচকদের বাইরে বিদেশ থেকে অংশ নেয়া আলোচকেরা ছিলেন দশটি ভিন্ন দেশের নাগরিক। এদের মধ্যে ছিলো মালয়েশিয়া, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, তাইওয়ান, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আগত মেধাবী উদ্যেক্তারা।

দুই দিন ব্যাপী অনুষ্ঠিত এই সামিটের প্রথম দিন বেলা তিনটা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত আটটি সেশন অনুষ্ঠিত হয়। সামিটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. আ.স.ম মাকসুদ কামাল, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডীন ড. মোহাম্মদ আবদুল ময়ীন, ড. সালিভান মোর্ট, হাল প্রাইজের প্রধান নির্বাহী পরিচালক আহমেদ আসকার, বিপ্রপারটির প্রধান নির্বাহী পরিচালক মার্কস নসওয়ার্দি এবং উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সম্মেলনের প্রধান আয়োজক, ডিইউইডিইসির মডারেটর ড. রাফিউদ্দিন আহমেদ(সহযোগী অধ্যাপক, মার্কেটিং বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়)। প্রথম দিনে অনুষ্ঠিত সেশনগুলোর মধ্যে বর্তমান চাকরির বাজার, উদ্যোগ যাত্রা, মার্কেটিং ও ব্র্যান্ড পরিকল্পনা,বৈশ্বিক উদ্যোক্তাদের সফলতার গাঁথা,তাদের উদ্যোক্তা হয়ে ওঠার পেছনের গল্প, স্টার্টআপের জন্য ইন্টেলিজেন্স পাও্যার দক্ষতা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তুলে ধরা হয়।

সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে দুপুর বারোটা থেকে রাত দশটা পর্যন্ত ১৩টি সেশন অনুষ্ঠিত হয়। উদ্যোক্তা হওয়ার নৈতিকতা, সামাজিক উদ্যোক্তা ও স্টার্টআপ, শিশু উদ্যোক্তা, উদ্যোক্তা হওয়ার ঝুঁকি, দেশের বাইরে বানিজ্যিকতার সুযোগসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও উদ্ভাবনী প্রেক্ষাপট তুলে ধরা হয়।

এ সম্মলনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটা সেগমেন্ট ছিলো “ডেমো আইডিয়া পিচিং”।এই সেগমেন্টে তরুণরা তাদের উদ্ভাবনী আইডিয়া উপস্থাপন করেছে এবং সেই আইডিয়ার ভালো-মন্দ দিক তাদের বুঝিয়ে দেয়া হয়।

দুই দিনের এই সম্মেলনের সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক শিবলী রুবায়াতুল ইসলাম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এত বৃহৎ পরিসরে এই প্রথম উদ্যোক্তাদের নিয়ে কোনো সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলো। অনলাইনে আয়োজন করার কারণে দেশের যেকোনো জায়গা থেকে মানুষ সম্মেলনটিতে অংশগ্রহণ করতে পেরেছে।

এ ধরনের উদ্যেগ দেশের উন্নয়নে এবং তরুণদের ব্যবসায়মুখী চিন্তাভাবনা গড়ে তোলার ক্ষেত্রে প্রশংসার দাবি রাখে।

ঢাকা ,২৬ জুলাই,(ডেইলি টাইমস২৪) /আর এ কে

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button
Close