জেলার সংবাদ

সম্প্রীতির উৎসবে বর্নিল হোক শারদীয় উৎসব: মেয়র লিটন

ঢাকা, ২৩ অক্টোবর(ডেইলি টাইমস২৪): মোঃ আনিছুর রহমান, বেনাপোল প্রতিনিধিঃ

ধর্ম যার যার উৎসব সবার এ প্রত্যয় ব্যাক্ত করে যশোর জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেন, আমি আপনাদের ভালবাসা নিয়ে বাঁচতে চাই। আমি আপানাদের সাথে মিলে মিশে একসাথে সকলের সুখে দুঃখে থাকতে চাই। কোন অশুভ শক্তিকে প্রশ্রয় না দিয়ে আমরা শুভ শক্তি নিয়ে ভাববো, অন্যায়কে অন্যায় ন্যায়কে ন্যায় বলতে কোন প্রকার পিছ-পা হবো না । আমাদের হিন্দু মুসলমানদের মধ্যে কোন সাম্প্রদায়িক ভেদাভেদ না রেখে সকলে মানুষ হিসাবে একসাথে কাজ করতে চাই। পৃথিবীর সবথেকে বড় ধর্ম হচ্ছে মানব ধর্ম। তাই সম্প্রীতির উৎসবে বর্নিল হোক শারদীয় উৎসব। কথাগুলি বললেন শার্শা উপজেলা শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে সনাতন ধর্মের নেতৃবৃন্দের সাথে শার্শা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে মন্ডপে অনুদান ও মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠানে মেয়র লিটন এসব কথা বলেছেন।

রোববার (২৩ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ৪টার সময় শার্শা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে শার্শা উপজেলা সনাতন ধর্মালম্বীদেও ২৬ টি পূজা মন্ডপের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি শহিদুল আলম এর সভাপতিত্বে মেয়র লিটন বলেন, আমি জাতির জনকের একজন কর্মী এবং তার আদর্শকে বুকে লালন করি। সেই জাতির জনকের সময় হিন্দু মুসলমানরা ছিল গোড়া । কেউ কারো বাড়ি যেত না। সেই সময় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বেচ্ছাসেবক সংগঠনের জন্য হিন্দু মুসলমান মিলে সংগঠন করলেন। কিন্তু হিন্দু মুসলমান সম্প্রদায়ের নেতৃবৃন্দ একসাথে সংগঠন মেনে নিতে রাজি না হলে তখন বঙ্গবন্ধু তাদের বুঝিয়ে ছিলেন আমাদের শুধু ধর্ম আলাদা করে রেখেছে। আসলে আমরা সকলে মানুষ। তাই পৃথিবীর সকল ধর্মের চেয়ে বড় ধর্ম হচ্ছে মানব ধর্ম। ১৯৭১ সালের রনাঙ্গনে হিন্দু মুসলমান মিলে যুদ্ধ করে এদেশকে স্বাধীন করেছে। তাই আমরা একই ভুখন্ডে একই রাষ্ট্রে বসবাস করে কোন পার্থক্য দেখতে চাই না। আমরা এমন আচরন যাতে না করি যে আমাদের আচার আচরনে কেউ ব্যাথিত না হয় । আর এ মাটি শুধু মুসলমানদের জন্য ফসল ফলায় না। এ মাটি সকল ধর্মের বর্নের মানুষের জন্য ফসল ফলায়। তাই কোন অশুভ শক্তি যেন আমাদের মধ্যে প্রবেশ করতে না পারে। আমরা যেন অত্যাচারী খুনী এবং মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি না খেলি । আমি মানুষকে ভালবাসি এবং সকলকে ভালবেসে মরতে চাই। আমি সনাতন ধর্মলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব দূর্গা পূজা সেই উৎসবের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে চাই। আমার সাধ অনেক কিন্তু সাধ্য সামর্থ স্বল্প । তাই আমি আপানাদের ২৬টি পূজা মন্ডপে সামান্য কিছু অনুদান দিয়ে উৎসবে অংশগ্রহন করতে চাই।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক আহসান উল্লাহমাস্টার শার্শা উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ইলিয়াছ আজম, আব্দুর রহমান,আজিবর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান, শেখ কোরবান আলী, আলতাব হোসেন, রুহুল কুদ্দুছ ভূঁইয়া,হানেফ আলী, মিজানুর রহমান ,সেলিম রেজা বিপুল,,শ্রী শান্তি পদ গাঙ্গুলী, এমদাদুল হক বকুল, মিকাইল হোসেন, আসাদুজ্জামান আসাদ, সহ যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সুকুমার দেবনাথ।

ঢাকা, ২৩ অক্টোবর(ডেইলি টাইমস২৪)/আর এ কে

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button